,



কিশোরগঞ্জে করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত দুইদিনে কেড়ে নিলো তিন প্রাণ

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ কিশোরগঞ্জে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত দুইদিনে তিনজন মারা গেছেন। মারা যাওয়া এই তিনজনের সবাই পুরুষ। তাদের মধ্যে একজন কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার, একজন নিকলী উপজেলার ও একজন বাজিতপুর উপজেলার বাসিন্দা।

সর্বশেষ মারা যাওয়া ব্যক্তি কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার। তার নাম হাবিবউল্লাহ হাবিব (৫৩)। তিনি সদর মডেল থানা সংলগ্ন নাসরীন হোমিও হলের মালিক।

হাবিবউল্লাহ হাবিব শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (৭ জুলাই) দুপুর ২টার দিকে মারা যান।

গত রোববার (৫ জুলাই) করোনা পজেটিভ শনাক্ত হওয়ার পর ওইদিনই তাকে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়েছিল।

এর আগের দিন সোমবার (৬ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাজিতপুরে হযরত আলী (৯০) নামে এক ব্যক্তি মারা যান।

গত ২৮ জুন করোনা পজেটিভ শনাক্ত হওয়ার পর তিনি উপজেলার ভাগলপুর এলাকার নিজ বাসায় হোম আইসোলেশনে ছিলেন। সেখানেই সোমবার (৬ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

মারা যাওয়া হযরত আলীর স্থায়ী নিবাস জেলার অষ্টগ্রাম উপজেলার আদমপুর গ্রামে।

এর আগে রোববার (৫ জুলাই) দিবাগত রাত ২টার দিকে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহম্মদ আলী (৭০) নামে এক ব্যক্তি মারা যান।

তিনি নিকলী উপজেলার জারইতলা ইউনিয়নের ধারীশ্বর গ্রামের বাসিন্দা। গত ২ জুলাই করোনা পজেটিভ শনাক্ত হন তিনি।

ওইদিনই (২ জুলাই) তাকে কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

গত রোববার (৫ জুলাই) পর্যন্ত জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মোট ২৬ জন মারা যান। দুইদিনে আরো তিনজনের মৃত্যু হওয়ায় বর্তমানে জেলায় মৃতের সংখ্যা ২৯ জন।

উপজেলাওয়ারী হিসেবে, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৬ জন, হোসেনপুর উপজেলার ১ জন, করিমগঞ্জ উপজেলার ২ জন, তাড়াইল উপজেলার ১ জন, কটিয়াদী উপজেলার ১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলার ১ জন, ভৈরব উপজেলার ১২ জন, নিকলী উপজেলার ২ জন, বাজিতপুর উপজেলার ২ জন ও মিঠামইন উপজেলার ১ জন মৃত ব্যক্তি রয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর