,



ঢাকা-৫ আসনে ৫০০০ পরিবারকে ঈদ উপহার দিলেন কামরুল হাসান রিপন

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ বন্যা কবলিতসহ ঢাকা-৫ আসনের ৫০০০ পরিবারকে ঈদ উপহার দিলেন কামরুল হাসান রিপন। শুক্রবার ঢাকা-০৫ আসনের কদমতলী থানার ৬০ নাম্বার রায়েরবাগ এলাকায় বেলা সাড়ে ১১টায় ২০০০ পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার পৌঁছে দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি এবং ঢাকা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কামরুল হাসান রিপন।

বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ নামক ভয়ংকর ভাইরাসের কবলে গোটা বিশ্ব। বাংলাদেশেও তার প্রভাব পড়েছে। করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যেই দেখা দেয় বন্যা। দেশের অনেক নিম্নাঞ্চলই বন্যাকবলিত হয়ে পড়ে।

এর আগে বন্যাকবলিত অঞ্চল হিসেবে পরিচিত ৬৩ নাম্বার ওয়ার্ডের অসহায়-হতদরিদ্রদের মাঝে বৃহস্পতিবার ১৫০০ পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার নিয়ে উপস্থিত হন কামরুল হাসান রিপন। তার আগে ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী এলাকায় ১৫০০ পরিবারকে ঈদ উপহার দেন। ঈদ উপহারের মধ্যে রয়েছে পোলাউয়ের চাল, ডাল, তেল, লবণ, সেমাই, চিনি, দুধ ইত্যাদি।

চলতি বছরের ৬ মে ঢাকা-০৫ আসনের সাংসদ হাবিবুর রহমান মোল্লা মৃত্যুবরণ করেন। এরপর অবিভাবক শূন্য হয়ে পড়ে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। তবে কামরুল হাসান রিপন সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে মোল্লার অনুপস্থিতির অভাব বুঝতে দেননি। ঢাকার প্রবেশদ্বার খ্যাত ডেমরা-যাত্রাবাড়ী-কদমতলী থানার গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকার মানুষের সকল প্রকার সমস্যা সমাধানে দিন-রাত পরিশ্রম করে চলেছেন। আর এই কঠিন সময়ে দিনরাত কার্যক্রমের মাধ্যমে অত্র এলাকার সর্বসাধারণের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন কামরুল হাসান রিপন।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখার শুরু থেকেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে মাঠে থেকে সক্রিয় ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন কামরুল হাসান রিপন। লিফলেট বিতরণ থেকে শুরু করে বিনামূল্যে সুরক্ষা মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ত্রাণসামগ্রী, ইফতার সামগ্রী এবং ঈদ উপহার বিতরণ করেছেন তিনি। ঈদুল ফিতরের ঈদে কামরুল হাসান রিপন ১০ হাজার পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করেন ।

তারই ধারাবাহিকতায় এবার ঈদ-ঊল-আযহা’র সময়েও মানুষের পাশে দাঁড়ালেন কামরুল হাসান রিপন।

এ প্রসঙ্গে কামরুল হাসান রিপন বলেন, ‘ছাত্রজীবন থেকেই মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। সেই ধারাবাহিকতায় কখনোই ছেদ পড়েনি। করোনা ভাইরাসের শুরু থেকেই অসহায়-মেহনতি মানুষের পাশে আছি। এসময় তিনি আরও বলেন, “লকডাউনের সময়েও জীবন বাজি রেখে দিন-রাত এক করে মানুষের সেবায় নিয়োজিত ছিলাম। একটি দিনের জন্যও আমি ঘরে বসে থাকিনি। দেশের এই বিপদের মধ্যে ঢাকা-৫ আসনের মানুষের পাশে থাকতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। ইনশাআল্লাহ, ভবিষ্যতেও আমি ঢাকা-৫ আসনের মানুষের পাশে থাকবো।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর