,



অবশেষে আলোর মুখ দেখছে ঢাকা-সিলেট চার লেন

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ অবশেষে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ২১৪ দশমিক ৪৪ কিলোমিটার ফোর লেনে উন্নীত করার কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) তিন বছরের পরিকল্পনায় ঢাকা-সিলেট চার লেন প্রকল্পটি ঠাঁই পেয়েছে। এতে ঋণ দিতে একমত হয়েছে বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী এ সংস্থাটি।

এতদিন ঢাকা-সিলেট ফোর লেন নির্মাণে উন্নয়ন সহযোগীর সন্ধানে ছিল সরকার। দেশের অন্যতম মেগা প্রকল্পের আওতায় এডিবিকে ২১০ কোটি ডলার ঋণ চেয়ে চিঠি দিয়েছিল অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)।

বর্তমানে এডিবি’র পক্ষ থেকে ঋণ দিতে কোনো ঝামেলা নেই। চলতি বছরেই ঋণচুক্তি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের পক্ষ থেকে। এখনো উন্নয়ন প্রকল্পের প্রস্তাব (ডিপিপি) চূড়ান্ত হয়নি।

এডিবির এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, এই প্রকল্পের আওতায় এডিবি এখন ঋণচুক্তি করতে প্রস্তুত। চলতি বছরেই ঋণচুক্তি হওয়ার কথা। তবে এখনো সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ চূড়ান্ত করেনি ডিপিপি। এটি চূড়ান্ত হলে পরিকল্পনা কমিশনে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা হবে। এরপরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি চূড়ান্ত অনুমোদন পেলেই এডিবির সঙ্গে ঋণচুক্তি হবে।

এ প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন অনুবিভাগ) চন্দন কুমার দে বলেন, ঢাকা-সিলেট ফোরলেন নির্মাণ এডিবি’র ঋণেই হবে। ডিপিপি তৈরির কাজ শেষ হলেই ঋণচুক্তি সই হবে।

জানা গেছে, ঢাকা-সিলেট চার লেনে মূল সড়কের উভয় পাশে ধীরগতির যান চলাচলের জন্য পৃথক সার্ভিস লেন নির্মিত হবে। প্রকল্পের আওতায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাঁক সরলীকরণসহ অধিকমাত্রার ট্রাফিক বিবেচনায় এনে ৮০ কিলোমিটার গতিবেগ নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে নতুন পরিকল্পনায় সড়কটিতে চারটি ফ্লাইওভার, ১০টি আন্ডারপাস, ৪২টি ফুটওভার ব্রিজ, তিনটি ট্রাক স্ট্যান্ড এবং দুটি রেস্টহাউস থাকবে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর