,



কুড়িগ্রাম ও পাবনায় বাসচাপায় নিহত ৭

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ কুড়িগ্রাম-রংপুর মহাসড়কের আরডিআরএস বাজারের কাছে বিআরটিসি বাসের চাপায় প্রাইভেট কারের ৪ যাত্রী নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ৩ জন একই পরিবারের সদস্য। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, কুড়িগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা বিআরটিসি বাস (ঢাকা মেট্রো-ব ১৪-৫৬৮৮) বিপরীত দিক থেকে আসা একটি প্রাইভেট কারকে (ঢাকা মেট্রো-গ ২৫-৯৫৯৫) ধাক্কা দিলে কারটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে প্রাইভেট কারের চালক নরসিংদী  শহরের মৃত শাহেদ আলীর পুত্র সোহেল মিয়া নিহত ও যাত্রী নরসিংদী জেলার শিশু পরিবারে কর্মরত সিনিয়র কারিগরি প্রশিক্ষক (টিআই) আকবর হোসেন (৬২), তার স্ত্রী বিলকিছ বেগম (৪৫) ও পুত্র বেলাল হোসেনকে (২৬) হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান। এ ঘটনায় আহত হয় আকবর হোসেনের মেয়ে আয়শা সিদ্দিকা (১৪) ও প্রাইভেট কারের চালক সোহেল মিয়ার ভাতিজা ও জালাল উদ্দিনের পুত্র ওয়াসিম। দুর্ঘটনার পর দুই ঘণ্টা ওই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন আহতদের উদ্ধার করার পর যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম। কুড়িগ্রাম সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ারুল ইসলাম জানান, বিআরটিসি বাসটি চিলমারী থেকে গোপালগঞ্জের দিকে এবং প্রাইভেট কারটি নরসিংদী জেলা থেকে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার দিকে যাচ্ছিল। আরডিআরএস বাজারের কাছে দুর্ঘটনার পর বিআরটিসি চালক পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে একজন ও হাসপাতালে ৩ জন মারা যান। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রেদওয়ান ফেরদৌস সজীব মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, একজন ঘটনাস্থলে এবং ৩ জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।
এদিকে স্টাফ রিপোর্টার, পাবনা থেকে জানান, সুজানগর উপজেলার চিনাখড়ায় বাসের চাপায় স্কুলছাত্রসহ অটোভ্যানের ৩ যাত্রী নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- সুজানগর উপজেলার আন্ধারকোটা গ্রামের মৃত আবুল কাশেমের ছেলে হারুনুর রশিদ (২৪), সাঁথিয়া উপজেলার হাসানপুর গ্রামের অটোভ্যান চালক ইলিয়াস আলী (৪৭) ও চিনাখড়া উচ্চ বিদ্যারয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ও দুলাই ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদের ছেলে সোহেল রানা (১৬)। গত বুধবার রাত ১টার দিকে পাবনা-ঢাকা মহাসড়কের চিনাখড়া বাজার নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গতকাল পাবনা জেনারেল হাসপাতালের ডাক্তাররা তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় দুলাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাহজাহান জানান, পাবনা থেকে ঢাকাগামী সি লাইন নামের একটি যাত্রীবাহী বাস চিনাখড়া স্কুল এন্ড কলেজের সামনে একটি অটোভ্যানকে চাপা দেয়। এ সময় ভ্যানচালক ইলিয়াসসহ বাকি দু’জনকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

মাধপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আলী রেজা বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বাসটি পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তবে, চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর