,



মেসির সমালোচনার জবাবে শান্তির বার্তা বার্সা সভাপতির

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ লিওনেল মেসি বার্সেলোনা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলেও পরে মত বদলেছেন। ন্যু ক্যাম্পে থেকে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার দিন বার্সেলোনা সভাপতি হোসেপ মারিয়া বার্তোমেউকে ধুয়ে দিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। এতদিন এসব বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন বার্সা সভাপতি। মেসি-বার্সার যুদ্ধটা থেমেছে। নতুন মৌসুম শুরুর আগে প্রস্তুতি ম্যাচে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে মাঠেও নেমেছেন মেসি। সবকিছু শান্ত হয়ে যাওয়ার পর মেসি ‘ইস্যু’তে কথা বললেন বার্তোমেউ। ক্লাবের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়ের সমালোচনার জবাব দেননি তিনি। উড়িয়েছেন শান্তির পতাকা।
সভাপতি হিসেবে শেষের সময়ে রয়েছেন বার্তোমেউ

নানা কারণে বিতর্কিত বার্তোমেউ কোনভাবেই চাননি, ক্লাবের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়টি ঠিকানা বদল করুক তার প্রেসিডেন্সিয়াল মেয়াদে। সেটা তার কথাতেই স্পষ্ট, ‘সে দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। তাকে আমরা কোনভাবেই ছাড়তে পারি না। সে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়। মেসি দলে থাকা মানে সাফল্যের নিশ্চয়তা। তাকে আমাদের প্রয়োজন।

বার্সেলোনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে ক্ষোভ ঝেড়েছিলেন মেসি। চুক্তির শর্ত মেনে ক্লাব ছাড়তে চাওয়ার পরও নানা রকম প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে বার্সেলোনা। বার্তোমেউর কঠোর সমালোচনা করে মেসি বলেছিলেন, ‘তিনি কথা রাখেননি। আমার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন।’ মেসিকে বার্তোমেউ জবাব দিয়েছেন শান্তির পতাকা উড়িয়ে, ‘আমরা সেই খারাপ সময়টা পেছেনে ফেলে এসেছি। আমি মেসির সঙ্গে বিরোধে জড়াব না। মেসিকে ধরে রাখায় আমাদের নিজেদের অভিনন্দন জানানো উচিত

ক্লাব ছাড়ার বিষয়ে চুক্তির শর্ত নিয়ে বার্সেলোনা নানা রকম যুক্তি দেখানোয় বিপাকে পড়েন মেসি। সমঝোতা করতে আদালতে যেতে হতো মেসিকে। ভালোবাসার ক্লাবকে আদালতে তুলতে চাননি বলেই চুক্তি অনুযায়ী ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত বার্সেলোনাতে থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন ছয়বারের বর্ষসেরা ফুটবলার।

বার্সেলোনা সমর্থক গোষ্ঠীদের সম্মিলিত সংগঠন ‘কোর ব্লুগ্রানা’ বার্তোমেউকে মেয়াদ শেষের আগেই সরিয়ে দিতে চায়। সেজন্য গণভোট আয়োজনের লক্ষ্যে স্বাক্ষর সংগ্রহ শুরু করে। গণভোট আয়োজনে প্রয়োজন ১৬ হাজার ৫২১টি স্বাক্ষর। গত বৃহস্পতিবার নির্ধারিত সময়ের আগেই ২০ হাজার ৭৩১টি স্বাক্ষর জোড়ার করে ফেলে ‘কোর ব্লুগ্রানা’। তবে সরে দাঁড়ানোর কোন ভাবনা নেই বার্তোমেউর, ‘সরে যাওয়ার কথা ভাবছি না। তবে গণসাক্ষরের সংখ্যায় বোর্ড কিছুটা অবাক। তবে আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাসী।
বার্সেলোনার গঠনতন্ত্রের নিয়ম অনুযায়ী, ক্লাব সভাপতির বিপক্ষে অনাস্থা থাকলে ক্লাবটির নিবন্ধিত সদস্যের ১৫ শতাংশ স্বাক্ষর করলেই সরে যেতে হবে তাকে। আর সে নিয়মের বেড়াজালে পড়তে যাচ্ছেন ক্লাব সভাপতি হোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ।

এক বিবৃতিতে বার্সেলোনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে বার্তোমেউর বিপক্ষে মোট ২০ হাজার ৭৩১ জন অনাস্থা ভোট দিয়েছেন। এ পরিমাণ ভোট সঠিক কি-না এবং তা ক্লাব সভাপতির পদত্যাগের যথেষ্ট কি-না তা যাচাই করবে ক্লাবটি।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর