,



সৌন্দর্য পরিচর্যায় স্পা

স্পা করতে হয় ধাপে ধাপে। এজন্য প্রয়োজন হয় ধৈর্য্য। প্রথমেই তাই তৈরি করে নিতে হবে পরিবেশ। আপনার ফোন, টিভি, কম্পিউটার বন্ধ করে নিন। সুগন্ধি ছড়িয়ে দিন অল্প। এরপর শুরু করুন। ত্বকের পরিচর্যা দিয়ে শুরু করতে পারেন স্পা।

ত্বকের পরিচ্ছন্নতা
মৃদু বা ভেষজ কোনো ক্লিনজার দিয়ে প্রথমেই আপনার ত্বক পরিষ্কার করে নিন। এর জন্য ওটমিল বা হানিবেজ কোনো সাবান ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকে ক্লিনজার দিয়ে ধুয়ে নেয়ার পর টোনার লাগিয়ে নিন তুলোর সাহায্যে। গোলাপজল টোনার হিসেবে ভালো। এবার অয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার ম্যাসাজ করুন। গরম পানিতে কয়েকটা পুদিনাপাতা ফেলে সেই পানি দিয়ে মুখে দুই-তিনবার ভাপ নিন। এবার মুখে পানির ঝাপটা দিন।

ন্যাচারাল ফেসমাস্ক
আপনার ত্বক উপযোগী ফেসমাস্ক আগেই তৈরি করে রাখুন। এবার সেটি মুখে লাগিয়ে নিন। চোখে শসার টুকরো রাখুন। এবার মিউজিক শুনতে শুনতে রিলাক্স করুন। ১৫ মিনিট পর পানির ঝাপটা দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করে নিন। এবার এক টুকরা বরফ সারা মুখে লাগিয়ে নিন।

চুলের পরিচর্যায় ডিপ কন্ডিশনিং
চুল শুষ্ক হলে কন্ডিশনার পুরো চুলে লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ পর শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে চুল ঢেকে দিন। এবার ব্লো ড্রায়ার দিয়ে চুলে মিনিট ১৫ গরম বাতাস ব্লো করুন। তবে তাপমাত্রা মাঝারি রাখবেন। যখন মনে হবে চুলের গোড়া বেশ গরম হয়ে গেছে ক্যাপ খুলে নিন। এবার চুল শ্যাম্পু করে নিন। শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনিং করে নিন।

নখের প্রতি নজর
গরম পানিতে ফুটসল্ট দিয়ে তাতে পা কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। পরে পা ঘষে নিয়ে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। পুরনো নেলপলিশ তুলে নিন। এবার ভালো কোনো এসেনশিয়াল অয়েল ত্বক, নখ ও পায়ে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন।

ম্যানিকিউর
ভালো কোনো হ্যান্ড লোশন দিয়ে হাত ম্যাসাজ করুন। আঙুলও করবেন। নখ শেপ অনুযায়ী কাটুন ও ফাইল করুন। এবার সুগন্ধযুক্ত হ্যান্ডস্ক্র্যাব দিয়ে হাত ম্যাসাজ করুন। এবার নখে নেইলপলিশ লাগিয়ে নিন এবং ভালোভাবে শুকাতে দিন।

গোসল
গোসলের পানিতে কিছুটা এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিন। কুসুম গরম দিয়ে অনেক সময় ধরে গোসল সেরে নিন। এ সময় ইচ্ছে হলে কিছু সুগন্ধি মোম জ্বালিয়ে রাখতে পারেন। রিলাক্সেশন হতে সাহায্য করবে। সব শেষে পানিতে কিছুটা গোলাপজল মিশিয়ে সেটি ঢালুন। আপনাকে করে তুলবে সতেজ ফ্রেশ ভ্রু প্লাক করার প্রয়োজন হলে গোসলের পর করে নিন। কারণ এ সময় ত্বক কোমল থাকে।

মুখমন্ডলের যত্ন
মুখের স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে বাদ দেবেন না। দাঁত ব্রাশ করার পর অবশ্যই মিন্ট বা ফ্রুটি মাউথওয়াশ দিয়ে কুলকুচি করে নেবেন। এতে তরতাজা অনুভব করবেন।

রিলাক্স
আরামদায়ক পোশাক ব্যবহার পরুন। ঘরে সুন্দর রুম ফ্রেশনার কিছুটা ছড়িয়ে দিন। মৃদু কোনো মিউজিক দিন। আরাম করে বসে থাকুন আধা ঘণ্টা। এ সময় ইচ্ছে হলে আইসক্রিম, জুস, ফ্রুটস বা চকোলেট খেতে পারেন।

এভাবে ঘরে করতে পারেন স্পা আর ক্লান্তি দূর করে হয়ে উঠবেন সতেজ, সুন্দর।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর