,



সুপার কাপও বায়ার্নের

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ ফুটবল মাঠে দর্শক ফেরালো ইউরোপিয়ান ফুটবল সংস্থা (উয়েফা)। আর কোলাহলপূর্ণ মাঠে সেভিয়াকে হারিয়ে উয়েফা সুপার কাপ জিতলো বায়ার্ন মিউনিখ। বৃহস্পতিবার হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টে সুপার কাপের লড়াইয়ে সেভিয়ার বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় কুড়ায় জার্মান জায়ান্টরা। এতে ‘কোয়াড্রাপল’ পূর্ণ হয় বায়ার্ন মিউনিখের। এর আগে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ শিরোপা জিতে ট্রেবল পূর্ণ করে কোচ হান্সি ফ্লিকের দল। বাভারিয়ান খ্যাত বায়ার্ন মিউনিখ টানা ৩২ ম্যাচে অপরাজিত। গত বছরের নভেম্বরে ফ্লিক দায়িত্ব নেয়ার পর ঘরোয়া লীগ, ক্লাব ডাবল এবং চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জিতেছে বায়ার্ন মিউনিখ। সর্বশেষ তারা হার দেখেছিল ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে।

পরের ৩২ ম্যাচে তাদের ৩১ জয় এবং একটি ড্র।
চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ও ইউরোপা লীগের শিরোপাজয়ী দু’দলের লড়াইয়ে বুদাপেস্টের পুসকাস অ্যারেনায় ২০ হাজার দর্শককে মাঠে প্রবেশের অনুমতি দিয়েছিল উয়েফা। বৃহস্পতিবার ম্যাচে আগে গোল পায় স্প্যানিশ দল সেভিয়াই। লুকাস ওকাম্পোসের গোলের পর বায়ার্নকে সমতায় এনে দেন লেয়ন গোরেটস্কা। পরে ব্যবধান গড়ে দেন বদলি খেলোয়াড় হাভি মার্টিনেজ। অতিরিক্তি সময়ে মাঠে নেমে দলকে জয়সূচক গোল এনে দেন তিনি।
ম্যাচের ১৩ মিনিটে সাবেক বার্সা তারকা ইভান রাকিতিচকে ডি-বক্সের মধ্যে ফেলে দেন বায়ার্নের অস্ট্রিয়ান ডিফেন্ডার ডেভিড আলাভা। স্পট কিকে দলকে এগিয়ে নেন আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার ওকাম্পোস।
৩৪তম মিনিটে বায়ার্নকে ম্যাচে ফেরান গোরেটস্কা। সতীর্থের ক্রস ডি-বক্সের ভেতর পেয়ে ভলিতে তার সামনে বাড়ান লেভানদোস্কি। ডান পায়ের শটে বল জালে জড়ান জার্মান মিডফিল্ডার গোরেটস্কা।
নির্ধারিত সময়ে ১-১ সমতা ছিল দুই দলের। ফলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে। আর ১৪ মিনিটের মাথায় গোল পান বায়ার্নের বদলি খেলোয়াড় মার্টিনেজ। আলাবার শট গোলরক্ষক ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে না পারলে ফিরতি হেডে বল জালে জড়ান স্প্যানিশ মিডফিল্ডার।
২০০৬ সালে প্রথমবার সুপার কাপে অংশ নিয়ে শক্তিধর বার্সেলোনাকে ৩-০ গোলে হারায় সেভিয়া। এরপর আরো পাঁচবার খেলে সাফল্যের দেখা পায়নি তারা।
Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর