,



নির্বাচনের ফল জানতে কয়েক মাস লাগতে পারে : ট্রাম্প

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ আপনি কি অঙ্গীকার করছেন যে নির্বাচনের পরে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতার হস্তান্তর হবে?”

আমেরিকার মত দেশের রাজনীতিতে ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টকে এ প্রশ্ন করলে তার একটাই উত্তর পতে পারে বলেই মনে করা হয়। তা হলো: “হ্যাঁ”।

আসলে নির্বাচনের পাঁচ সপ্তাহ আগে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে এমন প্রশ্ন করতেও শোনা যায় না। কারণ এর যে অন্য কোন উত্তর হতে পারে সেটাও অকল্পনীয়। ভোটের পর পরাজিত পক্ষ ফলাফল মেনে নিচ্ছে না – এমন ঘটনা শুধু তৃতীয় বিশ্বের দেশেই হয়তো ঘটতে পারে বলে মনে করা হয়।

কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হবার পর সেখানে এমন অনেক কিছুই ঘটে গেছে যা দেশটির ইতিহাসে প্রায় নজিরবিহীন।

নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতির কারণে এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অর্ধেক ভোটার তাদের ভোট ডাকযোগে দেবেন। তবে বিষয়টি নিয়ে শুরু থেকেই অসন্তোষ প্রকাশ করে আসছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

গতকাল শুক্রবারও ভার্জিনিয়ার নিউপোর্ট নিউজে আয়োজিত এক নির্বাচনী সমাবেশে তিনি অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, নির্বাচনের পর হয়তো বিজয়ীর নাম জানতে কয়েক মাস লেগে যাবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, ভোটাররা ডাকযোগে তাদের ব্যালট পাঠালে সেটি পৌঁছতে অনেক দিন সময় লেগে যাবে। তিনি এর জন্য অপেক্ষা করতে চান না। বরং তিনি নির্বাচনের পর কে জয়ী হলো বা কে পরাজিত হলো দ্রুত সে খবর শুনতে পারলেই খুশি হবেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প আরো বলেন, তিনি দেখতে চান টেলিভিশনে বলা হচ্ছে নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন ওমুক। নির্বাচনের ফলাফল জানতে নিশ্চয়ই কেউ মাসের পর মাস অপেক্ষা করতে পারে না। এটি যদি হয় তাহলে ব্যাপারটা হবে পুরো জগাখিচুড়ি।

তিনি আরো বলেন, এবার নির্বাচনের ফলাফল ভোটের রাতেই শুনতে পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। নির্বাচনে হয়তো তিনি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর থেকে এগিয়ে থাকবেন, কিন্তু তার পরও একটার পর একটা ব্যালট ডাকযোগে আসতে থাকবে আর কালক্ষেপণ হবে।

আগামী ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে চলেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বিশেষজ্ঞদের মতে, ডাকযোগে ভোট দেওয়ার করণে নির্বাচনের ফলাফল জানতে বেশ কয়েক দিন সময় লাগবে। কারণ ডাকযোগে ভোটারদের ব্যালট আসতে সময় লাগবে, এরপর সেগুলো আবার গুণতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর