,



শেখ হাসিনা আছেন বলে গরিবের মুখে হাসি ফুটেছে

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আছেন বলে বাংলাদেশে গরিবের মুখে হাসি ফুটেছে। আমরা আশা করি, ২০৪১ সালের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন অর্জন করতে পারব। শেখ হাসিনা যদি জীবিত না থাকতেন আমাদের এই আশা কখনও পূরণ হতো না। শেখ হাসিনার সরকার আছে বলেই এখন জনগণ কিছু পায়।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে শনিবার দুপুরে শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। আবদুল মোমেন বলেন, একটা সময় এ দেশে শিক্ষার্থীদের সেশন জট লেগে থাকত। এখন সব পরীক্ষা টাইমলি হয়। দেশে এখন ব্যবসায়ীরা নিশ্চিন্তে ব্যবসা করতে পারেন। এখন হরতাল-অবরোধের ঝামেলা তাদের নেই।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, শেখ হাসিনা দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছেন। বঙ্গবন্ধুকে খুন করলেও তার বিচার হবে না এ ধরনের আইন এই দেশের পার্লামেন্টে গৃহীত হয়েছিল। দীর্ঘ ২১ বছর পর বঙ্গবন্ধু কন্যা সরকারে আসার ফলে সেই ঘৃণিত আইন দূর করা হয়। আমাদের দেশে যে কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়, সেই জিনিসটি প্রতিষ্ঠিত হয়। আপনি যে দলেরই হোন না কেন কেউ যে আইনের ঊর্ধ্বে নয় সেটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

শেখ হাসিনা দেশের সব গণমাধ্যমকে স্বাধীনভাবে কাজের সুযোগ দিয়েছেন মন্তব্য করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা আছেন বলেই আপনারা ঠিকঠাকভাবে কাজ করতে পারছেন। দেশের সব মিডিয়া খুলে দেয়া হয়েছে। বর্তমানে এতগুলো প্রাইভেট টিভি দেশে চলছে। আর সেটা সম্ভব হয়েছে শেখ হাসিনার জন্য। সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, দেশবাসীকে ধন্যবাদ। কারণ তারা পরপর কয়েকবার শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ সরকারকে নির্বাচিত করেছেন।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ফাল্গুনী হামিদের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য দেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ, আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর