,



মন খারাপ মেসির

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ মেসি থাকছেন না বার্সেলোনায়, এ নিয়ে আগস্টের শেষের দিকে জোর গুঞ্জন শুরু হয়ে ছিলো বার্সা শিবিরে। প্রায় সপ্তাহ দেড়েক নানান নাটকীয়তার পর আরও এক মৌসুম বার্সায় থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন আর্জেন্টাইন যাদুকর লিওনেল মেসি।

মেসি থেকে গেলেও বার্সা ছেড়ে নতুন ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে যোগ দিয়েছেন লুইস সুয়ারেজ। ক্লাবের ইতিহাসের তৃতীয় সর্বাধিক গোলদাতা সুয়ারেজকে খুব বাজেভাবে বিদায় দিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। আর এ বিষয়ে ক্ষুব্ধ হয়েছেন বার্সা অধিনায়ক লিওনেল মেসি।

এজন্য মন খারাপ এই আর্জেন্টাইনের। এমনটাই জানিয়েছেন বার্সা কোচ রোনাল্ড কোমাইন। তবে ম্যাচে এর প্রভাব পড়বে না বলে বিশ্বাস এই ডাচ কোচের।

তার মতে, এটা স্বাভাবিক যে প্রিও বন্ধু ছেড়ে চলে যাওয়ায় সে (মেসি) কষ্ট পেয়েছে। তারা একসঙ্গে অনেক বছর খেলেছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে মেসি অনুশীলন করেছেন এবং খেলেছেন। সে সবার কাছে এক উদাহারণ। তার মন খারাপ ঠিকই, তবে মাঠে ফেরার পর থেকে সে প্রচুর উদ্যম ও উৎসাহ দেখিয়েছেন। যা কিনা মাঠেও দেখতে পাব আশা করি।

২০১৪ সালে ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল ছেড়ে বার্সায় যোগ দেন সুয়ারেস। ৬ বছর মেসির সাথে একটানা খেলেছেন তিনি। দলের হয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও চারটি লা লিগাসহ মোট ১৩টি শিরোপা জিতেছেন তিনি।

সুয়ারেজের চলে যাওয়া নিয়ে ক্ষুব্ধ বার্সা সমর্থকরাও। গুঞ্জন শোনা গিয়েছে, সুয়ারেজের বার্সা থেকে বিদায়ের মূল হোতা নতুন কোচ কোম্যাইন। তিনি সংবাদমাধ্যমকে সাফ জানিয়েছিলেন, এখন আর আগের মতো দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হিসেবে বিবেচিত হবেন না সুয়ারেজ। এমন কি নিয়মিত একাদশেও হয়তো সুযোগ মিল্বে না তার। ফলে কোচের দিকেই ক্ষোভ সমর্থকদের।

এ বিষয়ে কোম্যাইন বলেন, অনেকের ধারণা, এসব কিছুর মূলে আমি, কিন্তু তা ঠিক নয়। তাকে (সুয়ারেজ) আমি সম্মান দেখিয়েছি। আমি তাকে বলেছিলাম, সম্ভবত সে অনেক বেশি সময় খেলার সুযোগ পাবে না। তবনে সে থাকলে তার উপর আমি আস্থা রাখতাম। এটা কেবল আমার সিদ্ধান্ত ছিল না, ক্লাবেরও সিদ্ধান্ত ছিলো।

এসময় তরুণ খেলোয়াড়দের অধিক সুযোগ দেয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়ে তিনি আরো বলেন,’অনেক তরুণ খেলোয়ার আছে যাদের দলে জায়গা পাওয়ার সুযোগ আছে এবং এটাই ফুটবল। সুয়ারেজ এবং আমি এখনও একে অপরকে সম্মান করি। সে চলে গেছে আমি তার মঙ্গল কামনা করি।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর