,



বাবা-মেয়ের গানে মুগ্ধ সোশ্যাল মিডিয়া

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ বাবা হারমোনিয়াম বাজাচ্ছেন, সঙ্গে গাইছেন। বাবা যেখানে ছেড়ে দিচ্ছেন, মেয়ে শুরু করছেন সেখান থেকেই। বাবা-মেয়ের এমন গানে মুগ্ধ দেশের সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্ম। অনেকেই চিনে ফেলেছেন এই নারী কণ্ঠশিল্পীকে, আবার কেউ কেউ চিনছেন না। তবে সঙ্গের ‘বাবা’-কে অনেকেই চিনতে পারছেন না। তাতে সমস্যা নেই, গানে বুঁদ হয়ে যাচ্ছেন ঠিকই।

পাঠকদের জন্য বিষয়টি খোলাসা করে দিতেই হয়। সেরা কণ্ঠখ্যাত কণ্ঠশিল্পী জানিতা আহমেদ ঝিলিক। গান গেয়ে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ব্যাপক শ্রোতাপ্রিয়তা লাভ করেছেন। ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিওতে অনেকেই দ্বিধায় ছিলেন যে তিনি আসলেই ঝিলিক কি না।

কণ্ঠশিল্পী ঝিলিকের  তিন বছর বয়স থেকেই গানের জীবন শুরু। তাঁর বাবা এমএ জলিল একজন সংগীতশিল্পী। বাবাকে নিয়েই তিনি হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের ‘অলিরও কথা শুনে…’ গানটি গেয়ে মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করেন। এরপর সেটি নিজের ফেসবুকে পোস্ট করে দিলে বাবা-মেয়ের সমন্বিত এই গান ফেসবুকে হু হু করে ছড়াতে থাকে। নেটিজেনরা এই গানে বুঁদ হয়ে নিজেদের মুগ্ধতা প্রকাশ করতে ভুলছেন না।

ঝিলিক তাঁর বাবার কাছেই প্রথম গানের তালিম নেন। তাঁর বাবার কাছে শাস্ত্রীয় সংগীতও শেখেন। এরপর ঝিলিক ওস্তাদ বাসন্তী গোমেজ এবং ওস্তাদ মনীন্দ্রনাথ রায়ের কাছে শাস্ত্রীয় সংগীত শিখেছেন। ঝিলিকের জন্ম হয়েছে রংপুর জেলায় নানাবাড়িতে। তাঁর ৯ মাস বয়সে মা-বাবার সঙ্গে ঢাকায় চলে আসেন।

সজল কুমার সাহা নামের একজন লিখেছেন,  অসাধারণ পরিবেশনা তার। প্রিয় জলিল ভাই খুবই সুন্দর গেয়েছেন এবং যোগ্য পিতার যোগ্য সন্তান হিসেবে ঝিলিক খুবই চমৎকার গেয়েছে। প্রিয় শিল্পীর প্রতি শ্রদ্ধা এর চেয়ে ভালো কী হতে পারে..আশা করি আপনাদের সবার ভালো লাগবে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর