,



স্বেচ্ছাশ্রমে নির্মিত হলো ৪০০ ফুটের দৃষ্টিনন্দন কাঠের সেতু

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার আমীরগঞ্জ ইউনিয়নের মাছিমনগর গ্রাম ও চর আড়ালিয়া ইউনিয়নের বটতলী গ্রামের সংযোগস্থলে মেঘনার শাখা নদীর ওপর স্বেচ্ছাশ্রমে ও নিজস্ব অর্থায়নে বটতলীবাসী নির্মাণ করলো ৪০০ ফুট দীর্ঘ দৃষ্টিনন্দন কাঠের সেতু। এতে কেউ দিয়েছেন টাকা, কেউ দিয়েছেন শ্রম।

সেতুটি নির্মাণের ফলে চর আড়ালিয়া ও আমীরগঞ্জসহ পাঁচ-ছয়টি ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষের চলাচলের পথ সুগম হলো। সেতুটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ১০ লক্ষাধিক টাকা। সময় লেগেছে প্রায় দুই মাস। সেতুটির দৈর্ঘ্য ৪০০ ফুট এবং প্রস্থ সাড়ে ছয় ফুট। গত ১০ জানুয়ারি এলাকাবাসীর চলাচলের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে খুলে দেওয়া হয় সেতুটি। সেদিন সেখানে জড়ো হয়েছিল হাজারো মানুষ। গ্রামবাসীদের মধ্যে ছিল আনন্দ উল্লাস। এই সেতু দিয়ে চর আড়ালিয়া, নিলক্ষা, আমীরগঞ্জ, হাইরমারা, চরসুবুদ্ধি ইউনিয়নসহ পাঁচ-সাতটি ইউনিয়নের প্রায় ১০ হাজার লোকজন চলাচল করে।

বটতলী গ্রামের অটোচালক শরীফ মিয়া বলেন, বর্ষাকালে নৌকা দিয়ে নদী পার হতে গিয়ে শিক্ষার্থী, বয়স্ক মহিলা ও রোগীদের অনেক সমস্যা হতো। এই কাঠের সেতু নির্মাণ হওয়ায় এখন আমরা গাড়ি নিয়ে এপার থেকে ওপারে যেতে পারছি।

একই গ্রামের রুহুল আমীন বলেন, দীর্ঘদিন ধরে শুনছি এখানে সেতু নির্মাণের কথা। কিন্তু স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা শুধু আশ্বাসই দিয়ে যাচ্ছেন। তাই আমরা এলাকাবাসী মিলে দীর্ঘ দুই মাস পরিশ্রম করে এই সেতু নির্মাণ করেছি। আমরা এখানে একটি পাকা সেতু নির্মাণ করার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

চর আড়ালিয়া ইউপির ওয়ার্ড সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, এটি একটি অবহেলিত ইউনিয়ন। আমাদের গ্রাম থেকে আড়াই শতাধিক ছাত্রছাত্রী নৌকা দিয়ে নদী পার হয়ে দক্ষিণ মির্জানগর গার্লস স্কুল, হাসনাবাদ উচ্চ বিদ্যালয় ও বালুয়াকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করতে যায়। তাছাড়া গর্ভবতী মহিলাসহ গুরুতর অসুস্থ রোগীদের হাসপাতালে আনা-নেওয়ার ক্ষেত্রে মারাত্মক সমস্যায় পড়তে হয়। এই কষ্ট কিছুটা লাঘবের জন্য আমরা নিজস্ব অর্থায়নে একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করেছি।

আমীরগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন খাঁন বলেন, যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এখানে একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করা হয়েছে আমি তাদেরকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই।

চর আড়ালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান সরকার হাসান বলেন, আমার ইউনিয়ন একটি অবহেলিত ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নে এক ফুট রাস্তাও পাকা নেই।

তিনি বলেন, বটতলী গ্রামে নদীর ওপর একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করা হয়েছে শুধু এলাকাবাসীর দেওয়া টাকায়। আমার কাছ থেকেও একটা টাকা নেয়নি তারা। এলাকাবাসীর কঠোর পরিশ্রমে এই সেতুটি নির্মাণের ফলে চর আড়ালিয়া ইউনিয়নসহ আশপাশের পাঁচ-ছয়টি ইউনিয়নবাসীর সঙ্গে সেতুবন্ধ তৈরি হলো।

উপজেলা প্রকৌশলী শামীম ইকবাল মুন্না বলেন, ঐ এলাকায় মেঘনা শাখার ওপর ১০০ মিটারের একটি সেতুর প্রস্তাব রয়েছে। সমীক্ষা চলমান। খুব শিগিগরই এলজিইডির অর্থায়নে সেতু নির্মাণের প্রক্রিয়া শুরু হবে। শুনেছি এলাকাবাসীর অর্থায়নে ঐ এলাকায় একটি কাঠের সেতু তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু সেতুটি জনচলাচলে কতটুকু নিরাপদ তা না দেখে বলতে পারব না।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর