,



খতনা করার সময় শিশুর গোপনাঙ্গ কেটে দিলেন ‘ডাক্তার’

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ ফতুল্লার মুসলিমনগরে ৮ বছর বয়সী এক শিশুর সুন্নতে খতনা করতে গিয়ে গোপনাঙ্গ (লিঙ্গ) কর্তনের অভিযোগ পাওয়া গেছে হাতুড়ে ডাক্তার মো: মোক্তার হোসাইন সরকারের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় ভুক্তভুগী শিশুটির পিতা মো: সোহেল আলম (৪০) বাদি হয়ে ফতুল্লা থানায় মোক্তার হোসাইন সরকার ও অজ্ঞাতনামা অপর এক সহযোগীকে আসামি করে রবিবার (১৩ জুন) ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এজাহারে জানা যায়, চটকদারী বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে বাদি গত মাসের ২৪ তারিখ সকালে তার ছেলের সুন্নতে খতনার জন্য মুসলিমনগরস্থ সাহাবুদ্দিন ফার্মেসীর মালিক মোক্তার হোসাইন সরকারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে তার ছেলেকে সুন্নতে খতনা করার প্রস্তাব দেয়। একই দিন দুপুর ৩টার দিকে মোক্তার হোসাইন সরকার তার এক সহোযোগিকে নিয়ে তার পূর্ব গোপালনগর বাসায় এসে ছেলের সুন্নতে খতনা করায়। সুন্নতে খতনা করাকালীন সময়ে তারা শিশুটির গোপনাঙ্গের সামনের বেশি অংশ কেটে ফেলে এতে করে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। তারা বিষয়টি বাসার কাউকে না বুঝতে দিয়ে তড়িঘড়ি করে ব্যান্ডেজ করে তার ছেলেকে ঘুমের ঔষধ সেবন করিয়ে দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরবর্তীতে রক্তক্ষরণের মাত্রা বৃদ্ধি পেলে ডাক্তারকে ফোন করে জানালে তেমন কোনো সমস্যা নয় বলে জানায়।

কিন্তু রক্তক্ষরণের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে থাকলে তার ছেলেকে একই দিনে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা সেখান থেকে শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করার পরামর্শ প্রদান করলে সেখানেই পরবর্তীতে তার ছেলের চিকিৎসা করানো হয়।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ইনচার্জ রকিবুজ্জামান জানান, অভিযোগের সত্যতা পেয়ে বাদির লিখিত অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে আসমিরা পলাতক রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর