,



আফগানিস্তানে কোনও মার্কিন নাগরিককে ফেলে আসবে না যুক্তরাষ্ট্র: বাইডেন

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, সেনা প্রত্যাহারের সময়সীমা শেষ হয়ে যাওয়ার পরও আফগানিস্তানে থাকতে পারে আমেরিকার বাহিনী। দেশটিতে আটকে পড়া মার্কিনিদের সেখান দেশে ফেরানোর প্রয়োজনেই এমনটা করা হবে বলে জানান তিনি। খবর বিবিসির।

বাইডেন চাচ্ছেন যে মার্কিন সেনাবাহিনী এ মাসের মধ্যেই আফগানিস্তান থেকে বেরিয়ে আসুক। কিন্তু প্রায় ১৫ হাজার মার্কিন নাগরিক এখনও আফগানিস্তানে রয়েছে। এমতাবস্থায় তাদের সেখান থেকে বের করে আনাই অগ্রাধিকার বলে জানান বাইডেন। এবিসি নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেন, কাবুলের টালমাটাল অবস্থা এড়ানো যেতো না।
বাইডেন বলেন, ৩১ আগস্ট পুরোপুরি সেনা প্রত্যাহারের সময়সীমাকে অতিক্রম করলেও আফগানিস্তানে থাকা সব মার্কিনিকে ফিরিয়ে আনতে দেশটিতে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র। যদি কোনও মার্কিন নাগরিক অবশিষ্ট থাকে, আমরা তাদের নিয়ে ফিরবো। তিনি জানান, এখনও ১০ থেকে ১৫ হাজার মার্কিনিকে উদ্ধার করতে হবে। এছাড়া ৫০ থেকে ৬০ হাজার আফগানকেও উদ্ধার করতে হবে বলে জানান তিনি।

গত রোববার তালেবানরা আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখল করে নেয়ার পর বিদেশি সরকারগুলো পশ্চিমা নাগরিক এবং তাদের আফগান মিত্রদের দেশটি থেকে বের করে আনছে। এমতাবস্থায় প্রায় সাড়ে ৪ হাজার মার্কিন সেনা সাময়িকভাবে কারজাই ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। তবে এয়ারপোর্ট ঘিরে রেখেছে তালেবানরা।

মার্কিন নাগরিকরা বিবিসি’র মার্কিন অংশীদার সিবিএস নিউজকে জানিয়েছে, দেশে ফিরে আসার জন্য নির্ধারিত ফ্লাইটে উঠতে পারছেন না তারা। কারণ তারা বিমানবন্দরে প্রবেশ করতে পারছে না। এদিকে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন বলেছেন, এত বিপুল পরিমাণ মানুষকে উদ্ধারে নিজেদের সক্ষমতার ব্যাপারে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন।

তার কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল যে, আটকে পড়া মার্কিনিদের উদ্ধারে দেশটির সেনাবাহিনী সক্ষম কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে অস্টিন বলেন, এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে নিয়ে আসার সক্ষমতা আমাদের নেই। পেন্টাগন জানিয়েছে, এ পর্যন্ত ৫ হাজার মানুষকে উদ্ধার করা হয়েছে কাবুল থেকে। তবে একদিনে ৯ হাজার মানুষকে সরিয়ে আনার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর