,



চুমুর অজানা তথ্য

ভালোবাসা প্রকাশের অন্যতম মাধ্যম ‘চুমু’। চুমু যুগলদের মধ্যে মানসিক ঘনিষ্টতা তৈরি করে। আর চুমু সম্পর্কে প্রমাণিত সত্য হচ্ছে এটিকে মানুষ তার প্রথম যৌন মিলনের চাইতেও বেশিদিন মনে রাখে। মানুষের জীবনের অবিচ্ছেদ এক অংশ হচ্ছে এই চুমু, যা সম্পর্কে অনেক তথ্যই হয়তো আপনার অজানা। চুমু সম্পর্কে জেনে নিন বেশকিছু অজানা তথ্য।
এক মিনিট ধরে চুম্বন করলে নাকি দু’ক্যালোরি ক্ষয় হয়।
গড়ে একজন মানুষ জীবনে যে পরিমাণ চুম্বন করেন, তা তার আয়ুর দু’সপ্তাহ মাত্র!
চুম্বনের সময়ে ১০ লাখ থেকে এক কোটি ব্যাকটিরিয়া আদানপ্রদান হয় দু’জনের মধ্যে।
বিভিন্ন কারণে নাকি বিশ্বের ১০ শতাংশ মানুষ এখনও চুমু খান না। যেমন সুদানের মানুষ মনে করেন, মুখ হল শরীরের সবথেকে পবিত্র অংশ। তাই সেখানে কোনও রকম ব্যাকটেরিয়ার অনুপ্রবেশ হওয়া উচিত নয়।
ফ্রেঞ্চ কিসের একটি বিজ্ঞানসম্মত নাম হল ‘ক্যাটাগ্লটিজম’।
মেক্সিকো, সৌদি আরবের মতো বেশ কিছু দেশে এখনও প্রকাশ্যে চুমু নিষিদ্ধ।
বেশি চুম্বনে নাকি দাঁতের ক্ষয় হতে পারে। তবে দাঁত পরিষ্কার রাখতে নাকি চুমুর কোনও বিকল্প নেই।
গবেষণায় প্রকাশ, ৫৯ শতাংশ পুরুষ এবং ৬৬ শতাংশ মহিলা প্রথম চুমুর পর সঙ্গীকে অপচ্ছন্দ করতে শুরু করেন।
Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর