,



ব্যাংকে ১০ লাখ পর্যন্ত টাকা রাখলে উৎস জানাতে হবে না

ব্যাংকে টাকা জমা রাখতে গেলে সাধারণত গ্রাহকদের কাছে অর্থের উৎস জানতে চায় ব্যাংক। এখন থেকে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ব্যাংকে জমা রাখলে উৎস জানতে চেয়ে প্রশ্ন করবে না ব্যাংক। তবে, এর বেশি টাকা জমা রাখতে গেলে উৎস সম্পর্কে জানতে চাইবে ব্যাংক। ব্যাংকার্স সভায় ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর এই নির্দেশনা দিয়েছেন।

রোববার (৪ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকে ব্যাংকার্স সভা শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের নবনিযুক্ত নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. মেজবাউল হক গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘ব্যাংকে টাকা জমা দিতে গেলে আমানতকারীদের ব্যাংকাররা বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। বিশেষ করে, টাকার উৎস জানতে চান। এতে গ্রাহকরা বিভ্রান্তির মধ্যে পড়েন। তাই, এখন থেকে অন্তত ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জমা দিতে গেলে কোনো গ্রাহকদের কাছে উৎস জানতে চেয়ে কোনো ধরনের প্রশ্ন না করার এবং গ্রাহকদের হয়রানি না করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র বলেন, ‘হুন্ডির চাহিদা যেখান থেকে তৈরি হয়, আমরা সেটা খোঁজার চেষ্টা করছি। আন্ডার ইনভয়েসিং বন্ধ করার চেষ্টা চলছে। ৯০ শতাংশ ব্যাংক নির্ধারিত ১০৭ টাকা দরে রেমিট্যান্স আনছে। কিছু ব্যাংক হয়ত বেশি দাম দিচ্ছে, তবে এমনটি না করার জন্য, বিশেষ করে নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা না করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

ইসলামী ব্যাংক সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অডিট ও ইন্সপেকশনের মধ্যে পার্থক্য আছে। ইসলামী ব্যাংকের ঋণ তদারকি করা হচ্ছে। ইসলামী ব্যাংকে আমানত এখন পর্যন্ত সম্পূর্ণ নিরাপদ। এ নিয়ে গুজব ছড়ানোর অবকাশ নেই। এটা নিয়ে তদন্ত হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘হুন্ডি বন্ধ করার জন্য সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর মাধ্যমে যাতে কোনো টাকা পাচার না হয়, সে বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের তদারকি অব্যাহত আছে।’ভ

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর