,



আমি কোন দলের নই, সবার রাষ্ট্রপতি

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:

আমি কোন দলের নই, সবার রাষ্ট্রপতি- এমনটাই বললেন দেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

তিনি বলেন, আমাকে ভোট দিতে দিতে কিশোরগঞ্জের  লোকজন বৃদ্ধ হয়ে গেছে। আর আমিও ভোট নিতে নিতে বৃদ্ধ হয়ে গেছি। তাই এলাকার জন্য কিছু করে যেতে হবে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জের হাওরের তিন উপজেলা ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রামকে সংযুক্ত করে ৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ অলওয়েদার মহাসড়ক নির্মাণ কাজের ফলক উন্মোচন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে এসব কথা বলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

রাষ্ট্রপতি বলেন, হাওরের তিন উপজেলার রাস্তার কাজ শেষ হলে হাওর এলাকার চেহারা অনেকটা পাল্টে যাবে।

দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে সবার সহযোগিতা চেয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, এলাকার চলমান উন্নয়ন কাজগুলো বাস্তবায়িত হলে ভবিষ্যত প্রজন্ম উন্নতি ও প্রগতির দিকে এগিয়ে যাবে। তাই দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে সবার সহযোগিতা করা উচিত।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, বর্ষাকালে হাওরের গ্রামগুলোকে দ্বীপের মতো মনে হয়। মালদ্বীপে যেমন ১২শ দ্বীপ আছে, তেমনি হাওরেও হাজারেরও বেশি দ্বীপের মতো গ্রাম আছে। আমি তিন মন্ত্রীকে সঙ্গে করে নিয়ে এসেছি যেন তারা হাওরের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে এগিয়ে নিতে প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা ও পদক্ষেপ নিতে পারেন।

ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম উপজেলা সংযোগ সড়ককে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সঙ্গে সংযুক্ত করার ওপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, অষ্টগ্রাম থেকে এই সড়ক মাত্র চার কিলোমিটার দূরে গেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর। এই চার কিলোমিটার সড়ক নির্মাণ করা হলে এটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সঙ্গে সহজেই যুক্ত হবে। এতে এই এলাকার মানুষ রাজধানীসহ সারা দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে।

কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক অ্যাডভোকেট মো. জিল্লুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের হাওরের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

অনুষ্ঠানে সেতু মন্ত্রী  বলেন, ২০১৮ সালের জুন মাসের মধ্যে হাওরের তিন উপজেলার এই সংযোগ সড়কের কাজ শেষ হবে। এই তিন উপজেলার মানুষের ঢাকার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপনের জন্য এটিকে হাইওয়ের সঙ্গে যুক্ত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে হাওরের উন্নয়নে যা কিছু করার তা করা হবে।

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, হাওর এলাকার উন্নয়নে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ চলছে। এতে বিঘ্ন সৃষ্টি করতে অনেকেই অপপ্রচার চালাতে পারে।

এলাকার উন্নয়নে কারো কথায় কান না দিয়ে সবাইকে আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান তিনি।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে স্থানীয় এমপি রাষ্ট্রপতির বড় ছেলে রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের এমপি অ্যাডভোকেট সোহরাব উদ্দিন, মিঠামইন উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. আবদুস সাহিদ ভূইয়া প্রমূখ বক্তৃতা করেন।

 

এ সময় সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব এম.এ.এন সিদ্দিক, সড়ক যোগাযোগ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলি ইবনে আলম হাসান, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলি মো. শাহাবুদ্দিন খান এবং প্রকল্প পরিচালক মো. মনিরুল ইসলামসহ সামরিক-বেসামরিক উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বেলা ১১ টায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ হেলিকপ্টারযোগে মিঠামইনে অবতরণ করেন। উপজেলা ডাকবাংলোতে বিশ্রাম শেষে ফলক উন্মোচন ও সমাবেশে অংশ নেন। সমাবেশ শেষে তিনি উপজেলার ঢাকী গ্রামের সামনের ফুলবাড়ীয়া নদীর উত্তরপাড়ে একটি সেতুর নির্মাণকাজ উদ্বোধন করেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর