যৌন কেলেঙ্কারি মামলার পর ভিন্সের পদত্যাগ

বহুল জনপ্রিয় ওয়ার্ল্ড রেসলিং এন্টারটেইনমেন্ট (ডব্লিউডব্লিউই) ও ইউএফসির প্রধান প্রতিষ্ঠান টিকেও’র এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করলেন ভিন্স ম্যাকমাহোন। তার বিরুদ্ধে ডব্লিউডব্লিউইর সাবেক কর্মকর্তা জানেল গ্রান্টের যৌন নিপীড়ন ও অন্য কয়েকটি বিষয়ে মামলার পর এই সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

তবে অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করেন ভিন্স। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের কাছে পাঠানো এক বিবৃতিতে ৭৮ বছর বয়সী এই বিলিওনার বলেন, ‘আমি আমার পূর্বের বিবৃতিতেই অটল আছি, যে মিসেস গ্রান্টের মামলা মিথ্যা। এটি অশ্লীলতার উদাহরণ তৈরি করা ও বানোয়াট খবর।’

এর আগে ২০২২ সালে অবশ্য গ্রান্টের সঙ্গে ৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি সমঝোতা চুক্তি হয়েছিল। তবে চলতি সপ্তাহে ভিন্সের বিরুদ্ধে নতুন করে মামলা করা হয়েছে। যেখানে গ্রান্ট দাবি করেন, ম্যাকমাহন ১ মিলিয়ন কিস্তির পরে অর্থপ্রদান করা বন্ধ করে দেন এবং তিনি এখন সেই চুক্তি বাতিল করতে চান।

আরো বলা হয়, ম্যাকমাহন জোর করে তাকে যৌন খেলনা দ্বারা অত্যাচার করেছেন। যার ফলে তিনি ক্ষত এবং রক্তপাতের শিকার হন।

তিনি আরও অভিযোগ করেছেন, ম্যাকমাহন ২০২১ সালের জুন মাসে কানেকটিকাট সদর দপ্তরের একটি কক্ষে তালাবদ্ধ করে রেখেছিলেন এবং যৌন নিপীড়ন করেছিলেন।

এদিকে ডব্লিউডব্লিউই এর আগে ২০২২ সালের একটি বিবৃতিতে জানিয়েছিল, গ্রান্টের সাথে ম্যাকমাহনের যৌন সম্পর্ক ছিল ‘সম্মতিমূলক’। এবার ডব্লিউডব্লিউই প্রেসিডেন্ট এবং টিকেও বোর্ডের সদস্য নিক খান শুক্রবার রাতে কর্মীদের কাছে একটি ইমেলে জানান, ভিন্স ম্যাকমাহন টিকেও এর এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান এবং টিকেওর বোর্ড অফ ডিরেক্টরের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর