মিয়ানমারের ৩৩০ জনকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে আজ

সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়া মিয়ানমারের ৩৩০ জনকে দেশটির কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে জানিয়েছে বিজিবি। বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা এসব ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী, সেনাবাহিনী, শুল্ক কর্মকর্তারা।

এদিকে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি, কক্সবাজারের উখিয়া এবং টেকনাফ সীমান্ত এলাকায় বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) গোলাগুলির শব্দ কিছুটা কম শোনা গেছে। যদিও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তে গতকাল আরও তিনটি লাশ ভাসতে দেখেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

তবে সেগুলোকে এখনো উদ্ধার করা যায়নি।

২ ফেব্রুয়ারি রাত থেকে নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ওপারে বিদ্রোহী গোষ্ঠি আরাকান আর্মির সঙ্গে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির সংঘর্ষ অব্যাহত আছে। ৪ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত তিনটা থেকে দুই পক্ষের মধ্যে থেমে থেমে গোলাগুলি ও মর্টার শেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছিলো।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারের এসব সদস্যদের কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে কক্সবাজারের কিনারি জেটি ঘাটে। সেখান থেকে বাংলাদেশি জাহাজে করে তাদের নিয়ে যাওয়া হবে মাঝসাগরে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার সমুদ্রসীমায়। সেখানে অবস্থান করছে মিয়ানমারের জাহাজ। সেখানেই মূলত মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর এসব সদস্যদের হস্তান্তর করা হবে।

অপরদিকে, বাংলাদেশের অভ্যন্তর সীমান্তে অস্থিরতা কমলেও কাটেনি আতঙ্ক। এদিকে আজ থেকে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছিলো ৫ শতাধিক এসএসসি পরীক্ষার্থী। এই পরিস্থিতিতে সীমান্তে থাকা দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরীক্ষা কেন্দ্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছিলো। এরই মধ্যে নতুন কেন্দ্রে পরীক্ষা দেওয়ার অনুমোদনও এসেছে। পুরো সীমান্ত এলাকা বিজিবির নিয়ন্ত্রণাধীন রয়েছে।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর