উন্নয়নের নামে ‘মেগা দুর্নীতি’ করছে আওয়ামী লীগ : মঈন খান

মেগা উন্নয়নের নামে আওয়ামী লীগ ‘মেগা দুর্নীতি’ করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান।

শুক্রবার সকালে এক অনুষ্ঠানে এ অভিযোগ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘এই সরকার উন্নয়নের নামে আজকে…পাকিস্তানে যেমন ২২টি পরিবার সৃষ্ট হয়েছিল, আজকে আওয়ামী লীগ সরকার বাংলাদেশে একটি অলিগার্কির মাধ্যমে ২২০ তাদের আশীর্বাদপুষ্ট পরিবার তৈরি করে এ দেশের সমস্ত সম্পদ কুক্ষিগত করে নিয়েছে এবং সেই লক্ষ-কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে দিয়েছে। উন্নয়নের নামে মেগা উন্নয়নের নামে তারা করছে মেগা দুর্নীতি।

তিনি বলেন, ‘এর ফলশ্রুতিতে দেখেছেন দেশের অর্থনীতি ধ্বংসের পথে। এ দেশে জিনিসপত্রের দাম আকাশচুম্বী। সামনে রমজান। আপনারা মজার কথা শুনেছেন, সেই রমজান মানুষ কিভাবে পালন করবে তার প্রেসক্রিপশন সরকার দিয়েছে।

আমি সেটা উচ্চারণ করতে চাই না।’বিশ্ব নারী দিবসে পোশাক খাতের নারী শ্রমিকদের অবস্থা তুলে ধরে মঈন খান বলেন, ‘বাংলাদেশের শ্রমিক সমাজ, বিশেষ করে আজকে বিশ্ব নারী দিবসে যদি উল্লেখ করতে হয়, বাংলাদেশের নারী শ্রমিকরা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে পোশাকশিল্পকে বিশ্বের সর্বোচ্চ জায়গায় নিয়ে গেছে। আজকে সারা বিশ্বে বাংলাদেশ পোশাক রপ্তানিতে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে। অথচ দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, আজকে সেই লক্ষ লক্ষ নারী শ্রমিক, যাদের অবদানের কারণে বাংলাদেশের এই সরকার বৈদেশিক মুদ্রা তথা উন্নয়নের বড়াই করে থাকে, আজকে সেই নারীসমাজ বঞ্চিত।

আজকে বিশ্ব নারী দিবসে বিএনপি সেই কথা নতুন করে উচ্চারণ করছে।’সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নবগঠিত কমিটির সভাপতি রাকিবুল ইসলাম রাকিব ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন নাসিরের নেতৃত্বে নেতাকর্মীদের নিয়ে মঈন খান শেরেবাংলানগরে জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। পরে সেখানে জিয়াউর রহমানের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

এ সময় ছাত্রদলের সাবেক নেতাদের মধ্যে আসাদুজ্জামান রিপন, শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানি, নাজিম উদ্দিন আলম, মোনায়েম মুন্না, কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ প্রমুখ নেতা উপস্থিত ছিলেন।

শ্রদ্ধা নিবেদনের পর মঈন খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘আজকে নতুন করে আমরা ছাত্রদলের নেতৃত্ব ঠিক করেছি।

যে ছাত্রদল অতীতে রক্ত দিয়ে এ দেশ গড়ে তুলেছিল। আজকে আমি এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করছি, ছাত্রদলের অনেকে তারা জীবন বাজি রেখে বাংলাদেশের গণতন্ত্র, ভোটের অধিকার, মানবাধিকার, নারী অধিকার, শিশু অধিকার এবং জনগণের অর্থনৈতিক অধিকার নিশ্চিত করবে ইনশাআল্লাহ।’এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘একটা মিথ্যা বানোয়াট মামলায় সাজা দিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে বছরের পর বছর তারা কারাবন্দি করেছে। এই সরকার গণতন্ত্রকে ভয় পায়। যেহেতু বিএনপি গণতন্ত্রের কথা বলে সে জন্য তারা গণতন্ত্রকে ভয় পায়। বিএনপি চেয়ারপারসনকে ভয় পায়, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ভয় পায়। সে জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে শুধু কারারুদ্ধ করে রাখে নাই। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সাহেবকে দেশে ফেরার পথে তারা মিথ্যা মামলা দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর