,



অপুর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছেন গুলজার

অনেক ছবির কাজ অর্ধসমাপ্ত রেখেই ‘আত্মগোপন’ করায় বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাসের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব মুশফিকুর রহমান গুলজার।
বিষয়টি নিয়ে গুলজার বলেন, আমরা জেনেছি যে অপুকে পাওয়া যাচ্ছে না। একাধিক ছবি বন্ধ হয়ে আছে তার জন্য। যদি তাকে না পাওয়া যায় তাহলে অনেক টাকার ক্ষতি হবে প্রযোজকদের। যে ছবিগুলো বন্ধ হয়ে যাবে তার মধ্যে অনেক পরিচালকই নতুন করে কাজ শুরু করার ইচ্ছে বা ক্ষমতা হারিয়ে ফেলবেন কারণ তাদের জন্য নতুন প্রযোজক ম্যানেজ করে অন্য ছবি শুরু করাটা কঠিন। আসলে অপুর বিষয়টি আমরা গণমাধ্যমের মাধ্যমে জেনেছি। কেউ আমাদের কাছে অভিযোগ করেনি। যে কারণে আমরা প্রতিকার করতে পারছি না। যদি কোনো পরিচালক আমাদের অফিসে এসে লিখিত অভিযোগ করেন যে অপু তাদের শিডিউল দিচ্ছেন না, তা হলে আমরা সমিতির নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব। যদি তাতেও কাজ না হয়, আমরা আইনের আশ্রয় নেব। কিন্তু আইনি আশ্রয় নেয়ার আগে আমাদের কাছে তো লিখিত অভিযোগ আসতে হবে।
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সহসভাপতি ওমর সানি বলেন, একজন শিল্পী যদি শিডিউল দিয়ে সেটা রক্ষা না করেন তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া যাবে। তবে তার আগে পরিচালক ও প্রযোজককে আমাদের কাছে অফিশিয়ালি অভিযোগপত্র দাখিল করতে হবে। অপু বিশ্বাসের বিষয়ে আমাদের কাছে কেউ এখনও কোনও অভিযোগ করেননি। যদি অভিযোগ করা হয় তাহলে তার বাসায় শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে নোটিশ পাঠানো হবে। এরপরও যদি তাকে না পাওয়া যায় তাহলে পরিচালক সমিতির সঙ্গে মিলে শিল্পী সমিতি করণীয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেবে।
গত মার্চ থেকে হঠাৎ করেই সবকিছু থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেন নায়িকা অপু। বন্ধ করে দেন হাতে থাকা চলচ্চিত্রের শুটিং। এমনকি ভবিষ্যতের জন্য চুক্তিবদ্ধ থাকা চলচ্চিত্রের কাজও তিনি করবেন না বলে ‘বিচ্ছিন্ন’ হয়ে যান। বন্ধ হয়ে যায় যোগাযোগের সব মাধ্যম। এমনকি বন্ধ হয়ে যায় গুলশানে অবস্থিত অপুর ব্যায়ামাগার ‘এপিএস লেডিস ফিটনেস ক্লাব’টিও। গত ৩১ মে কোনও রকম ঘোষণা ছাড়াই বন্ধ করে দেয়া হয় ব্যায়ামাগারটি। সব মিলিয়ে অপু বিশ্বাসের এমন ‘নিখোঁজ’ হয়ে যাওয়াতে বেকায়দায় পড়েছেন অপু অভিনীত অর্ধসমাপ্ত ছবির প্রযোজক ও পরিচালকরা।
অপুর অনুপস্থিতির কারণে বর্তমানে বন্ধ রয়েছে বুলবুল বিশ্বাস পরিচালিত ‘রাজনীতি’ ছবির শুটিং। এ ছাড়া মমতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘মাই ডার্লিং’, মান্নান সরকার পরিচালিত ‘পাংকুজামাই’, কামাল কায়সার পরিচালিত ‘মা’সহ কয়েকটি ছবির শেষ পর্যায়ের কাজ অপুকে না পাওয়ার কারণে আটকে রয়েছে।
Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর