,



এই ট্রাক ড্রাইভারের ৫৪টি সন্তান ৬টি বউ

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ পাকিস্তানের এক ট্রাক ড্রাইভার ৫৪টি সন্তান এবং ৬টি সন্তান নিয়ে জীবন যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছেন! ৭০ বছর বয়সে এসেও তাকে একাই পরিবারের চাহিদাগুলো মেটানোর জন্য সংগ্রাম করতে হচ্ছে। তার সন্তানদের মাত্র একজন তাকে পরিবারের জন্য অর্থ উপার্জনে সহায়তা করছেন।

আব্দুল মজিদ মেঙ্গাল এবং তার অস্বাভাবিকভাবে বড় পরিবার বাস করেন ৭ রুমের একটি বাড়িতে। বাচ্চারা তাদের নিজেদের মায়েদের সঙ্গে ঘুমায়। কিন্তু পরিবারটি খুবই দরিদ্র এবং বাচ্চারা স্কুলে যেতে পারছে না অর্থের অভাবে। আব্দুল মজিদ ও তার বড় ছেলে আব্দুলই (৩৪) শুধু পরিবারের জন্য অর্থ উপার্জন করেন। ফলে অর্থের অভাবে চিকিৎসা না করাতে পারায় তার দুই স্ত্রী এবং ১২টি সন্তান মারা গেছেন।

বর্তামানে তার ২২টি ছেলে ও ২০টি মেয়ে আছে।

ট্রাক ড্রাইভার আব্দুল মজিদের আয় মাসে মাত্র ১৫ থেকে ২৫ হাজার রুপি। তার ছেলে আব্দুলও বাবার মতো ট্রাক ড্রাইভার। ১৮ বছর বয়সে আব্দুল মজিদ প্রথম বিয়ে করেন।
এরপর একে একে আরো পাঁচটি বিয়ে করেন তিনি। যাদের মধ্যে দুইজন মারা গেছেন।

 

যুক্তরাজ্যের ডেইলি মিররকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে আব্দুল মজিদ মেঙ্গাল বলেন, প্রতিদিনই তার যৌনমিলনের চাহিদা থাকায় তিনি একাধিক বিয়ে করেছেন!

পাকিস্তানে মুসলিম পুরুষরা চাইলে একসঙ্গে চারজন স্ত্রী রাখতে পারেন। এতে কোনো আইনগত বাধা নেই। তবে একাধিক বিয়ে করতে প্রথম স্ত্রীর অনুমতি নিতে হয়। এবং একটি সালিশি পরিষদের অনুমোদন লাগে। আব্দুলের সন্তানদের বেশিরভাগেরই বয়স ১০ এর নিচে। তার সবচেয়ে ছোট মেয়েটির বয়স মাত্র ১০ বছর।

সমাজকর্মীরা দাবি করেন, বহুবিয়ের ফলে সাধারণত কোনো পরিবারের নারী ও শিশুরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হন। কিন্তু আব্দুল মজিদের দাবি তিনি তার সকল সন্তান এবং স্ত্রীদের সব ধরনের চাহিদা মেটাতে পারছেন!

তিনি বলেন তারা সাধারণত প্রতিবেলায় ডাল, ঢেড়শ এবং সবজির সঙ্গে ১০০টি রুটি খান।

আর সস্তায় কাপড় কিনে তাদের সকলের জন্য পোশাক বানানো হয়। তবে তিনি স্বীকার করেছেন তার ১০ বছর বয়সী সন্তানদেরকেও তিনি বিদ্যালয়ে পাঠাতে পারছেন না। তবে তাদেরকে বাড়িতেই লেখাপড়া শেখানো হয় বলে জানান তিনি।

তবে বড় সন্তানদের কয়েকজন পড়াশোনা করেছে এবং তারা কাজের সন্ধানও করছে।

সংসারে অভাব থাকা সত্ত্বেও আব্দুল মজিদ আর্থিক সাহাজ্যের জন্য আবেদন করতে রাজি নন।

তিনি বলেন, কোনো না কোনোভাবে আমাদের দিন কেটে যাবে। কিন্তু কারো হাত পাতে পারব না!

প্রসঙ্গত, বর্তমানে পাকিস্তানের জনসখ্যা প্রায় ১৯ কোটি ৫০ লাখ। আর দক্ষিণ এশিয়া এই দেশটিতেই জন্মহার ও জনসংখ্যা বাড়ার গতি সবচেয়ে বেশি।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর