,



রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বিএনপি সরকারকে সহযোগিতা করবে

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বিএনপি সরকারকে সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক বিরোধী দলের চীফ হইপ জয়নুল আবদিন ফারুক।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মিয়ানমারে মুসলিম গণহত্যা বন্ধ, মানবতাবিরোধী অপরাধী মিয়ানমারের পণ্য বর্জনের দাবি’তে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর এক প্রতীকী অবস্থান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

জয়নুল আবদিন ফারুক বলেছ, রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সরকারকে সহযোগিতা করবো। তাদের খাদ্য, নিরাপত্তা, চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হোক। একই সঙ্গে সক্রিয় কুটনৈতিক তৎপরতার মধ্য দিয়ে মিয়ানমার সরকারকে বাধ্য করা হোক এই রোহিঙ্গাদেরকে তাদের দেশে ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য।

মিয়ানমার সরকারকে বাধ্য করতে ‘সক্রিয় কুটনৈতিক তৎপরতা’ গ্রহণের দাবি জানান তিনি। ফারুক বলেন,  ওরা হিন্দু না মুসলিম এটা জিজ্ঞাসা করার প্রয়োজন নেই ওরা মানুষ। সেই মানবতার বিরুদ্ধে আজকে মিয়ানমার সরকার যুদ্ধ শুরু করেছে, তাদের বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে।

তিনি বলেন, আসুন আমরা আজকে জনমত সংগঠিত করে সমগ্র বাংলাদেশেকে ঐক্যবদ্ধ করে আমরা মিয়ানমারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হই তারা যেন এই গণহত্যা বন্ধ করে, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিয়ে যায়। ন্যাপ ঢাকা মহানগর আহ্বায়ক সৈয়দ শাহজাহান সাজু’র সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব মো. শহীদুননবী ডাবলু’র সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া।

সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জাতীয় দল চেয়ারম্যান এডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, বিএনপি সহ-তথ্য গবেষণা সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী, এনপিপি মহাসচিব মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা, লেবার পার্টি মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, বিএমএল মহাসচিব শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী, এনডিপি ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, কল্যাণ পার্টি ভাইস চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান তামান্না, বাগেরহাট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, এনডিপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মো. শামসুল আলম, ইসলামিক পার্টি যুগ্ম মহাসচিব মাহমুদুল হাসান, দেশবাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে.এম. রাকিবুল ইসলাম রিপন, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফারুক হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব স্বপন কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, কেন্দ্রীয় সদস্য সোহেল রায়হান, ঢাকা মহানগর যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ জেলা যুগ্ম আহ্বায়ক মো. ওয়াজিউল্লাহ অজু, সদস্য সচিব মো. লুৎফর রহমান, জাতীয় ছাত্র কেন্দ্র সমন্বয়কারী সোলায়মান সোহেল, যুব ন্যাপ যুগ্ম সমন্বয়কারী আবুদুল্লাহ আল কাউছারী প্রমুখ।

ফারুক বলেন, সরকারকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল সাধুবাদ জানানোর পরই সরকারের উচিত ছিল দ্রুত সকল দলের সমন্বয়ে গোলটেবিল বৈঠকের আহ্বান করা। দেশের স্বার্থে গণতন্ত্রের স্বার্থে সরকারের উচিত সর্বদলীয় আলোচনার মধ্য দিয়ে রোহিঙ্গা সমস্যা মোকাবেলা করা।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, মানবতাবিরোধী অপরাধী মিয়ানমারের চাল আনবেন না। পৃথিবীর অন্যরাষ্ট্রগুলোর কাছ থেকে চাল আমদানি করুন। মায়ানমারের সাথে সম্পাদিত চাল আমদানি চুক্তি বাতিল করুন।

সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ শাহজাহান সাজু বলেন, রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা জাতিসংঘের ভূমিকা খুবই দুঃখজনক। প্রতিনিয়ত মায়ানমারে রোহিঙ্গাদের রক্তপাত ঘটেই চলেছে। অথচ আন্তর্জাতিকভাবে সুচি সরকারকে চাপ প্রদান করা হচ্ছে না।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর