,



সেক্স ফেরোমন ফাঁদ জনপ্রিয় হচ্ছে কুমিল্লায়

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার প্রান্তিক কৃষকরা সবজি চাষে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহারের মাধ্যমে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনে আগ্রহী হয়ে উঠছেন। দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এর জনপ্রিয়তা।

দেবিদ্বার উপজেলা কৃষি অফিসের আয়োজনে গতকাল রোববার দুপুরে মোহনপুর ইউনিয়নের কুরুইন গ্রামে মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা উত্তম কবিরাজের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সবজি চাষে সেক্স ফেরোমন ফাঁদের ব্যবহার নিয়ে কৃষকদের সাথে আলোচনা কালে পোকা দমনে কৃষক ও উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের আলোচনায় এর সফলতা এবং জনপ্রিয়তার কথা উঠে আসে।

জমিতে সবজি চারা রোপণের পর পোকার আক্রমণ থেকে চারা ও ফল রক্ষার্থে সবজি উৎপাদনে বড় একটি অংশ শুধু কীটনাশকের জন্য ব্যয় হয়ে যায়। কীটনাশক ব্যহারের ফলে পরিবেশ দূষিত হওয়া, ফসলের উপকারী পোকা মারা যাওয়া, সবজি বিষযুক্ত হওয়ার পাশাপাশি মানবদেহেরও ক্ষতি হয়। এসব কিছুর সমাধান হিসেবে সেক্স ফেরোমন পদ্ধতি খুবই কার্যকর। এই পদ্ধতিতে বিষমুক্ত উৎপাদিত সবজি একদিকে স্বাস্থ্যর জন্য উপকারী অন্যদিকে স্বল্প খরচ হওয়ায় চাষীরা এই পদ্ধতির চাষে ঝুঁকে পড়েছেন। এই অধিক কীটনাশক প্রয়োগ থেকে বাঁচার একটা উপায় হলো সেক্স ফেরোমন ফাঁদের ব্যবহার। এতে কৃষকের কীটনাশক ক্রয়ের খরচ কমবে এবং বিষমুক্ত সবজি পাবে এবং বিষের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে মুক্তি পাবে।

দেবিদ্বার উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, কুমড়া জাতীয় সবজির জমিতে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার কর্মসূচীর আওতায় বাস্তবায়িত প্রদর্শনী সহ চলতি মৌসুমে উপজেলা ১৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভায় ৫০শ’ হেক্টর জমিতে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহারের মাধ্যমে বিষমুক্ত সবজি চাষ হয়েছে।

এই সেক্স ফেরোমন ফাঁদ হলো একটা জৈব রাসায়নিক উপাদান যা স্ত্রী পোকা কর্তৃক নিঃসৃত হয় একই প্রজাতির পুরুষ পোকাকে মিলনে আকৃষ্ট করার জন্য। এই মিলনের ফলে অনেক পোকা জন্ম দেবে, যা সবজি ফসলের ক্ষতির মাত্রা আরো বহুগুণ বাড়িয়ে দেবে। সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহারের উপকার হলো তা সম্পূর্ণ প্রাকৃতিকভাবে তৈরিকৃত রাসায়নিক থেকে নেয়া এবং মানুষ ও পরিবেশের জন্য সম্পূর্ণভাবে নিরাপদ।

এই ফাঁদগুলো প্লাষ্টিকের তৈরী। ভইয়মএর ভিতরে থাকা (লিওর) দাম মাত্র ৩০ টাকা। ফাঁদটি একটি ফেরোমন লিউর ধারণকারী প্লাস্টিক টিউব ও স্থানীয়ভাবে তৈরি একটি ২২ সেন্টিমিটার উচ্চতার প্লাস্টিক ভইয়ম থাকে যাতে সাবান মিশ্রিত পানি ব্যবহার করা হয়।

৩-৪ সেন্টিমিটার উচ্চতার সাবান মিশ্রিত পানি প্লাষ্টিকের ভইয়মের নিচে পুরু মৌসুমব্যপী রাখতে হয়। আর ভইয়মের ওপরে মাঝখানে ফেরোমনসমৃদ্ধ প্লাস্টিকের টিউবটি রশি দিয়ে আটকানো থাকে যেন টিউবটি সাবান পানি থেকে মাত্র ২-৩ সেন্টিমিটার ওপরে থাকে।

ফাঁদটি ফসল রোপণের ৩-৪ সপ্তাহ পর ফসলের ঠিক ১০-১২ সেন্টিমিটার ওপরে খুটির মাধ্যমে সেট করতে হয় এবং শেষ ফসল তোলা পর্যন্ত জমিতে রাখতে হয়। এই ফাঁদে সর্বোচ্চসংখ্যক পুরুষ পোকা আকৃষ্ট হয়ে মাথা ঘুরিয়ে সাবান পানিতে পড়ে মারা যায়। এর ফলে পোকার বংশ বৃদ্ধির লক্ষ্যে স্ত্রী পোকার সঙ্গে মিলন ঘটানোর জন্য প্রকৃতিতে পুরুষ পোকার সংখ্যা ব্যাপকভাবে হ্রাস পায়। ফলে ক্ষতিকর পোকার পপুলেশন বাড়তে পারে না এবং ফসলের ক্ষতি অর্থনৈতিক ক্ষতির নিচে থাকে। এতে কৃষকদের ক্ষতিকর পোকা দমনের জন্য অতিরিক্ত কীটনাশক প্রয়োগ করতে হয় না।

একটি ফাঁদ কৃষক ১-২টি মৌসুম পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারে। এক একর জমির জন্য ৪০টি ফাঁদের প্রয়োজন হয়। ২ মিলি গ্রামের ফেরোমন তাবিজটি একমাস পর্যন্ত পোকা দমনে কাজ করে। পরবর্তীতে প্রতি মাসে ফেরোমন তাবিজ আকারের টেবলেটটি পরিবর্তন করতে হয়। যার ফলে পোকার বংশ বিস্তার ও হ্রাস পচ্ছে বলে বলে কৃষিবিদরা মনে করছেন।

বর্তমানে কুমড়া জাতীয় সবজির যেমন মিষ্টিকুমড়া, লাউ, ঝিঙ্গা, চিচিংগা, চালকুমড়া, শসা ইত্যাদির মাছি পোকা দমনে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ (কিউলিউর) ব্যবহার করা যায়। বেগুনের ফল ও ডগা ছিদ্রকারী পোকা দমনে সেক্স ফেরোমন ফাঁদ, বাঁধাকপি ও ফুলকপির ডায়মন্ড ব্যাক মথ দমনেও সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার হচ্ছে।

এ ব্যপারে দেবিদ্বার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা উত্তম কবিরাজ বলেন, এই পদ্ধতিতে সবজি চায় উৎপাদন করতে কৃষকদের নিয়ে প্রতিটি ব্লকের বিভিন্ন এলাকায় মাঠ দিবস অনুষ্ঠানের মাধ্যামে পরামর্শ দেওয়ার ফলে চাষীরা পোকা দমনে ফাদ নিয়ে ঝুঁকে পড়েছেন। এ বছর প্রায় সবিজ জমিতে এই সেক্স ফেরোমন পদ্ধতিতে বিষমুক্ত সবজি চাষ হয়েছে এবং উপজেলার সবজি চাষীরা বিষমুক্ত সবজি চাষে দিন দিন আগ্রহী হয়ে উঠছেন। এ পদ্ধতিতে সবজি চাষ করে চাষীরা আর্থিকভাবে অধিক লাভবান হচ্ছেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর