,



আগাম নির্বাচনের ভাবনা নেই সরকারের

আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভায় নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলা হলেও তেমন কোন প্রভাব পড়েনি দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে। আগাম নির্বাচনেরও কোন ভাবনা নেই ১৪ দলীয় জোট সরকারের। দলটির নেতারা বলছেন, নির্ধারিত মেয়াদ শেষেই নির্বাচন দেয়া হবে। একইসাথে নিজেদের অধীনেই নির্বাচন করার পরিকল্পনা আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের। দলটির একাধিক সূত্র পূর্বপশ্চিমকে একথা নিশ্চিত করেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২৬ জুলাই আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের সভায় দলীয় নেতাদের নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলা হয়। এরপর রাজনৈতিক অঙ্গনে আগাম নির্বাচনের গুঞ্জন শোনা যায়। তবে বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তারা জানিয়েছেন, ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে সরকারের মেয়াদ শেষ হবে। সেইসময়েই নির্বাচন দেয়া হবে।

এদিকে, নির্বাচনের জন্য আন্তর্জাতিক চাপও কাটিয়ে উঠতে পেরেছে সরকার বলে জানিয়েছেন দলটির নেতারা। সন্ত্রাস বিরোধী ভূমিকা রাখা ও উন্নয়ন কর্মকান্ড এগিয়ে নেয়ায় দ্রুত ভাবমূর্তি উজ্জল করা সম্ভব হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলের একজন সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য জানান, সম্প্রতি মঙ্গোলিয়া ও জাপান সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গুরুত্ব দেয়ায় এই বিষয়টা স্পষ্ট যে চাপ অনেকটাই কেটে গেছে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সম্প্রতি এক সভায়ও এ নিয়ে কিছু বলতে না চাইলেও জানিয়েছেন, নির্বাচন সময় মতোই হবে। এ নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নূহ উল আলম লেনিন পূর্বপশ্চিমকে বলেন, ২০১৯ সালে মেয়াদ শেষ হবে। সংবিধানে এর আগের ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের কথা রয়েছে। সেই নির্ধারিত সময়েই নির্বাচন হবে। এবং সেটা এই সরকারের অধীনেই। এ নিয়ে ভাবনার কিছু নাই। সময় হলে জানতে পারবেন।

আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ জানান, আগাম নির্বাচনের প্রশ্নই আসে না। কেউ আসুক বা না আসুক নির্বাচন ২০১৯ সালে হবে। অন্য দল কে কি করবে, সেটা তাদের ব্যাপার।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর