,



শেষ মুহূর্তে ভেঙে গেল অভিনেতা মিঠুনের ছেলের বিয়ে

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে মহাক্ষয় চক্রবর্তী মিমোর বিয়ে শেষ প‌র্যন্ত ভেঙে গেল। গতকাল শনিবার তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলার উধগমন্ডলমের একটি হোটেলে বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু মিমোর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও জালিয়াতির অভি‌যোগ থাকায় এদিন তদন্তে হোটেলেই চলে আসে পুলিশ।

কিছু দিন আগেই এক মহিলাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগ ওঠে মিমোর বিরুদ্ধে। কিন্তু তা সত্ত্বেও বিয়ে বাতিল করেননি কনে মদালসা শর্মার পরিবার। তাঁরা মা স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী বিয়েটা আজই হবে। সেই মতো বিয়ের আসরও বসেছিল তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলার উধগমন্ডলমের একটি হোটেলে।

বিলাসবহুল এই হোটেলটি মিঠুনেরই। সূত্রের খবর, আজ সেই হোটেলেই তদন্তকারীরা উপস্থিত হওয়ার পরেই বিয়ে বাতিল করে দিয়ে ফিরে গিয়েছেন কনেপক্ষ। পুলিশ সূত্রে সংবাদ মাধ্যমের খবর, পুলিশ ওই হোটেলে হানা দেওয়ার পরই কনেপক্ষ হোটেল ছেড়ে চলে ‌যায়। তেলেগু অভিনেত্রী মাদালসা শর্মার সঙ্গে মিমোর বিয়ের কথা ছিল।

ভারতের শীর্ষস্থানীয় একাধিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, ধর্ষণ ও জালিয়াতির মামলায় শনিবার মিঠুনের স্ত্রী ‌যোগিতা বালি ও ছেলে মিমোর আগাম জামিন মঞ্জুর করেন দিল্লির একটি আদালত। কিন্তু হোটেলে তদন্তকারীরা উপস্থিত হওয়ার পরেই বিয়ে বাতিল করে দিয়ে ফিরে যায় কনেপক্ষ।

আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিছুদিন আগে এক নারীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগ ওঠে মিমোর বিরুদ্ধে।তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে চার বছর ধরে এক নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক রেখেছিলেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার বম্বে হাইকোর্ট মিমো ও ‌যোগিতা বালিকে আগাম জামিন দিতে অস্বীকার করে। ফলে ওই দুজনের গ্রেপ্তার এক প্রকার অবশ্যম্ভাবী ছিল।এদিকে জামিন অগ্রাহ্য হওয়ার পরই তারা দিল্লি হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেন। তার পরেই শনিবার এক লাখ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে মা-ছেলের জামিন মঞ্জুর করেন বিচারপতি আশুতোষ কুমার। -আনন্দবাজার

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর