,



এমপিওভুক্তির আবেদন শুরু আগামী রোববার থেকে

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ আগামী রোববার থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির আবেদন নেয়া শুরু হবে। চলবে পরবর্তী ১৫ দিন। এমপিওভুক্তির জন্য আলাদা ওয়েবসাইটে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। আর পুরো প্রক্রিয়াটি সারা হবে অনলাইনে। অর্থাৎ প্রতিষ্ঠানের যোগ্যতা অনুসারে অটোমেটিক ক্রমিক সাজাবে সফটওয়ার। তারপর কত সংখ্যক প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তা তালিকা করে এমপিওভুক্ত করা হবে। এতে রাজনৈতিক চাপসহ অন্যান্য অনিয়ম বন্ধ হবে।

গতকাল দুপুুরে ব্যানবেইসে (বাংলাদেশ শিক্ষা ও পরিসংখ্যান ব্যুরো) অনুষ্ঠিত মন্ত্রণালয় গঠিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যাচাই বাছাই কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। সভা শেষে কমিটির আহ্বায়ক মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক) জাবেদ আহমেদ বলেন, রোববার থেকে অনলাইনে আবেদন নেয়া বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

১৫দিন পর্যন্ত নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে। সভায় কমিটির সদস্য ব্যানবেইস’র মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ, যুগ্ম সচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক) সালমা জাহান, যুগ্ম সচিব (আইন) মু. ফজলুর রহমান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (কলেজ) প্রফেসর মোহাম্মদ শামছুল হুদা, (মাধ্যমিক) প্রফেসর আবদুল মান্নানসহ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় শুধু আবেদন নেয়ার তারিখ ঠিক করা হয়েছে। এর আগে গত ১৯শে জুলাই শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সভাপতিত্বে একটি সভায় এমপিও নীতিমালা ২০১৮ অনুযায়ী এমপিও প্রত্যাশিত আবেদন গ্রহণ শেষে একটি তালিকা মন্ত্রীর কাছে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

নির্দেশনায়  যোগ্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকা উপজেলা ও সংসদীয় আসনভিত্তিক প্রস্তুত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক কলেজ ও স্নাতক (পাস)-এই পাঁচ স্তরের এপিওভুক্তির জন্য আলাদা আবেদন করা যাবে। একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এক বা একাধিক স্তরের জন্য আবেদন করতে পারবে। আবেদনের যোগ্যতার অন্যতম নির্দেশনা পাবলিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণের হার নির্ধারণের ক্ষেত্রে ২০১৫, ১৬ ও ১৭ সালের পরীক্ষায় পাসের হারের গড় করে মান নির্ধারণ করা হবে। এমপিও প্রত্যাশিত প্রতিষ্ঠানের নির্দেশিকায় সিটে সংশ্লিষ্ট সংসদীয় এলাকা/উপজেলায় বর্তমান এমপিও প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা এবং জনসংখ্যার ভিত্তিতে প্রাপ্যতার সংখ্যা উল্লেখ করতে বলা হয়েছে।

ব্যানবেইস’র মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহকে আহ্বায়ক করে ‘অনলাইন অ্যাপলিকেশন গ্রহণ ও ব্যবস্থাপনা’ কমিটি করা হয়। কমিটির তৈরি করা সফটওয়্যারটি ১৯শে জুলাইর সভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের সূত্র জানিয়েছে, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট http://shed.portal.gov.bd এ on line MPO শিরোনামে software এর লিংক দেয়া হবে। মন্ত্রণালয়েও ওয়েবসাইটে ঢুকে এ সফটওয়ারের মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। সফটওয়্যারে তিনটি প্রয়োজনীয় আইকন (Icon) দেখা যাবে। তাতে আবেদনের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া থাকবে। এমপিও প্রত্যাশিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানরা নির্দেশিকা অনুসরণ করে সহজেই অন লাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে পারবেন।

আবেদনকৃত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গ্রেডিং করার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য তথা-শিক্ষার্থীর সংখ্যা, পাবলিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ও পাসের হারসহ বিভিন্ন তথ্য ব্যানবেইস ও শিক্ষা বোর্ডের ডাটাবেইজ থেকে ইমপোর্ট করা হবে। এ সকল তথ্যের ভিত্তিতে এমপিও নীতিমালার শর্তানুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গ্রেডিং তালিকা স্বয়ংক্রিয় ভাবে তৈরি হবে।

বৈঠক সূত্র আরো জানায়, সফটওয়্যারটি ওরাল ডাটাবেস (Oracle Databace) সমৃদ্ধ রেড হার্ট এন্টারপ্রাইজ লিনাক্স (Red Hat Enterprise linxu) অপারেটিং সিস্টেম দ্বারা পারিচালিত হবে। অ্যাপাসি কনফিগারেশনসহ (apache configuration) জাভা স্ক্রিপ্ট লাইব্রেরি ব্যবহার করে সফটওয়্যারটি তৈরি করা হয়েছে। সফটওয়্যারের মাধ্যমে জমাকৃত যাবতীয় তথ্য ব্যানবেইসের সার্ভারে সংরক্ষিত থাকবে। ব্যানবেইসের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ব্যবস্থার মাধ্যমে ডাটা সিকিউরিটি নিশ্চিত করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর