,



ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মীদের পাশে দাঁড়াবে বিএনপি

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলীয় নেতাকর্মীদের যারা নিহত হয়েছেন তাদের পরিবার এবং হামলা-মামলায় ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মীদের পাশে দাঁড়ানের জন্য ১০টি সাংগঠনিক বিভাগের প্রতিটিতে পাঁচ সদস্যের টিম গঠন করেছে বিএনপি। ধানের শীষের প্রার্থীরা এই টিমের সঙ্গে কাজ করবে।

এসব কমিটিতে একজনকে দলনেতা করে চারজন সদস্যকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তারা ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মীদের আইনি সহায়তার বিষয়কে সামনে রেখে জেলা সফর করার পরিকল্পনাও করেছেন। এসব সফরে নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করতে নানামুখী কর্মসূচিও গ্রহণ করবেন তারা। এর মধ্যে আলোচনা সভা, উঠান বৈঠকের মতো কর্মসূচি নিয়ে তারা সাংগঠনিক দুর্বলতাগুলোকেও চিহ্নিত করবেন বলে জানা গেছে।

দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এসব কমিটি কারাগারে আটক নেতাকর্মীদের জামিনে মুক্তিলাভের প্রধান অন্তরায়গুলো চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। আসনভিত্তিক ধানের শীষের প্রার্থীরা এসব নেতাকর্মীদের আইনি সহায়তায় এগিয়ে আসছেন কিনা তাও তদারকি করবেন বিভাগীয় কেন্দ্রীয় কমিটি।

কমিটির মধ্যে দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমানকে ঢাকা বিভাগ, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে ময়মনসিংহ, ভাইস চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদকে চট্টগ্রাম, ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলুকে রাজশাহী, ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহানকে খুলনা, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ডা. ফরহাদ হালিম ডোনারকে সিলেট, ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিনকে বরিশাল, ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে রংপুর, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খানকে ফরিদপুর ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কবির মুরাদকে কুমিল্লা বিভাগের দলনেতা করা হয়েছে।

কমিটি গঠনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়েছে ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পূর্বাপর সরকারি বাহিনী ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী কর্তৃক হামলা, মামলা, গ্রেফতার ও আহতসহ ক্ষতিগ্রস্ত নেতাকর্মী ও সমর্থকদের দলীয় প্রার্থীরা কীভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করছেন তা সমন্বয়পূর্বক কেন্দ্রকে সঠিকভাবে অবহিত করার জন্য বিভাগওয়ারি টিম কাজ করবে ‘

টিমের কার্যক্রম নিয়ে ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, সারা দেশে নির্যাতনের একই চিত্র। তাদের কয়েক হাজার নেতাকর্মী কারাগারে আটক রয়েছেন। এসব নেতাকর্মীকে জামিনে মুক্তিলাভের জন্য আইনি সহায়তা কতটুকু দেয়া হচ্ছে, তাদের মুক্তি লাভের প্রধান অন্তরায়গুলো কি ধরনের, তা চিহ্নিত করার জন্য কাজ করবেন তারা।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর