,



ছেলেধরা’ ও ‘তিন লাখ ডেঙ্গু আক্রান্ত’র সংখ্যার গুজব ছড়ানো একই সূত্রে গাঁথা

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ গুজব রটনাকারীদের উদ্দেশ্য করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, দেশ এগিয়ে যেতে গেলে কিছু মানুষ তা থামাতে চায়। এক শ্রেণীর মানুষ দেশের উন্নয়ন চায় না। সামাজিক বিশৃঙ্খলা ছড়াবেন না। গুজব ছড়িয়ে দেশের অর্থনৈতিক যাত্রা ব্যাহত করবেন না,এতে সফল হতে পারবেন না। এর আগেও আপনারা চাঁদে আপনাদের এক নেতাকে দেখিয়ে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চেয়েছিলেন। তারাই এখন ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়িয়ে দিচ্ছেন।

তিনি বলেন,‘ছেলেধরা’ ও ‘তিন লাখ ডেঙ্গু আক্রান্ত’র সংখ্যার গুজব ছড়ানো একই সূত্রে গাঁথা। এসব বিষয়কে কঠোর হাতে দমন করা হবে।

শুক্রবার (২৬ জুলাই) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান। ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে ঢাকা মহানগরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-প্রধান ও স্কাউট লিডারদের সঙ্গে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে ঢাকা জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ স্কাউট।

অনুষ্ঠানে স্কাউট সদস্য ও স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে একটি নির্দিষ্ট ক্যাম্পেইন চালানোর জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-প্রধানদের নির্দেশনা দেওয়া হয়। ২৬ জুলাই থেকে আগামী ১ আগস্ট পর্যন্ত এ ক্যাম্পেইন চলবে। এই ক্যাম্পেইনের জন্য এলাকা ভাগ করে ফরম দেবে ঢাকা জেলা প্রশাসন। এই ফরমটিতে যা যা পূরণ করতে হবে তা হলো-পরিবারপ্রধানের নাম ও মোবাইল নম্বর, পরিবারের সদস্য সংখ্যা, বাড়ির ঠিকানা, বাসায় এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে কি-না, উত্তর হ্যাঁ হলে কোথায় পাওয়া গেছে এবং পরিবারে ডেঙ্গু আক্রান্ত কেউ আছে কি-না ইত্যাদি।

নির্দিষ্ট সময় শেষে পূরণকৃত ফরম স্কাউটদের মাধ্যমে ঢাকা জেলা প্রশাসনে জমা দিতে হবে। এই তথ্য অনুসারে ডিএসসিসি যথাযথ পদক্ষেপ নেবে।

অনুষ্ঠানে শিক্ষকদের মতামতের ভিত্তিতে এ কর্মকাণ্ডে সিটি করপোরেশনের প্রতিটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলরকে যুক্ত করার পরামর্শ দেওয়া হলে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আপনাদের এ কার্মকাণ্ডে কাউন্সিলররা থাকবেন। তাদের আমরা লিখিতভাবে এ নির্দেশনা দেবো।

ডিএসসিসি এলাকায় ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম কাজ করছে উল্লেখ করে সাঈদ খোকন বলেন, প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল টিম কাজ করছে। তাদের সেবা নেবেন। সেখানে ওষুধ বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে। আপনারা আপনাদের শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে সবার কাছে এ তথ্য পৌঁছে দেবেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সরকারের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের সবাই ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সচেষ্ট রয়েছে। আপনারা বর্তমানে সবাই সচেতন আছেন। এভাবেই ডেঙ্গু নির্মূল করা সম্ভব হবে।

মেয়র বলেন, প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রতিদিন ৩০টি বাসা এডিস মশামুক্ত করার কার্যক্রম চালু রয়েছে। এর সঙ্গে জেলা প্রশাসনের এই উদ্যোগ আমাদের কাছে যথার্থ ও সময়পোযোগী বলে মনে হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো পরিষ্কার করার জন্য আমাদের টিম রয়েছে।

তারা আপনাদের স্কুলে না গেলে আমাদের জানাবেন। আমরা খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের আপনাদের স্কুলে পাঠাবো। এই টিম স্কুলে পৌঁছানোর পর আপনারা খেয়াল করবেন স্কুলের যেসব জায়গায় সাধারণত যাওয়া-আসা হয় না বা পরিষ্কার করা হয় না, যেমন কার্নিশ, স্কুলের ছাদ ইত্যাদি স্থান, যেন পরিষ্কার করার কাজ করে ওই টিম। আপনারা প্রয়োজনে ০৯৬১১০০০৯৯৯ নম্বরে নিজেদের অভিযোগগুলো জানাতে পারেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর