,



সপরিবারে মালয়েশিয়ায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ রাজধানীসহ দেশের অধিকাংশ জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু। প্রাণঘাতি এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। প্রায় প্রতিদিনই খবর আসছে মানুষের মৃত্যুর। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযানের। ছুটি বাতিল করা হয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের।

হাসপাতালে বাড়তি শয্যা বাড়ানো হয়েছে। সারাদেশে যখন ডেঙ্গু আতঙ্ক তখন খোঁজ নেই খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ হাসান মালেকের। নানা মহলে কানাঘুষা শুরু হওয়ার পর জানা গেছে তিনি দেশে নেই। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে গেছেন মালয়েশিয়ায়।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, নিজের মেয়েকে সেখানকার একটি প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করার জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী মালয়েশিয়া গেছেন। তবে দেশের এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে তিনি ব্যক্তিগত কাজে সপ্তাহজুড়ে বাইরে থাকা নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অনেকেই তীব্র সমালোচনা করছেন তার।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর মঙ্গলবার জানিয়েছে, ৬০ জেলায় ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে। আর এ জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজার ৩৫৯ জন। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকায় রয়েছেন ১৩ হাজার ৫২৪, আর ঢাকার বাইরের জেলাগুলোতে রয়েছেন এক হাজার ৮৪৫ জন।

অপরদিকে, সরকারি হিসাবমতে এ পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা নয়জন। যদিও কেবলমাত্র ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই নয়জন মারা গেয়েছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে বেসরকারি হিসেবে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত অন্তত ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া সরকারি, বেসরকারি ও ঢাকার বাইরে হাসপাতালে বর্তমানে ভর্তি আছেন চার হাজার ৪০৮ জন।

ডেঙ্গু পরিস্থিতির এমন ভয়াবহতার মধ্যে মন্ত্রীর মালয়েশিয়া সফরের কথা মন্ত্রণালয়ের সবাই জানলেও কেউ সরাসরি মুখ খুলছেন না। এ নিয়ে গণমাধ্যমে কথা বলতে এক ধরণের নিষেধাজ্ঞাও আছে বলে মন্ত্রণালয়ে সূত্রে জানা গেছে। তবে মন্ত্রণালয়ের লোকজনও এ নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।

তবে কেউ আবার কৌশল করে বলছেন, তিনি তো দেশেই আছেন। কেউ বলছেন নিজ এলাকা মানিকগঞ্জে অবস্থান করছেন। অবশ্য সেখানকার প্রশাসনসহ দলের নেতাকর্মীরাও বলছেন সে খবর তারা জানেন না।

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস গণমাধ্যমকে জানান, ত্রাণ বিতরণ বা অন্য কোনও কাজে মন্ত্রী এলে আমার তা জানার কথা। তবে তিনি এসেছেন বলে কোনও তথ্য আমার জানা নেই।

আর স্বাস্থ্যমন্ত্রীর এপিএস ডা. আরিফ গণমাধ্যমকে মালয়েশিয়া যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে কৌশল করে জবাব দেন। বলেন, উনিতো সবকিছুর সঙ্গে কানেক্টেড আছেন। থাকার কথাতো, এই মুহূর্তে থাকার কথাতো। পরে তিনি মন্ত্রীর পিএসের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন।

জানা গেছে, গত শনিবার রাত ১২টার দিকে মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে সপরিবারে মালয়েশিয়া যান জাহিদ মালেক। ৪ আগস্ট তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর