,



জরিমানা করায় নিজের গাড়িতেই আগুন ধরিয়ে দিলেন চালক

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ  ড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে এবং দুর্ঘটনা কমাতে বেশ কঠোর অবস্থান নিয়েছে ভারতের ট্রাফিক পুলিশ।

সম্প্রতি ট্রাফিক আইন ভঙ্গকারীদের মোটা অংকের জরিমানা গুনতে হচ্ছে দেশটিতে।

চলতি মাসের প্রথম দিনে দেশটির গুরগাঁওতে ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্য করায় এক অটোচালককে ৩২ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করার ঘটনা ঘটে। এছাড়া নেশাগ্রস্থ অবস্থায় অটো চালানোয় ভুবনেশ্বরে এক চালককে ৪৭ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করে ট্রাফিক পুলিশ।

বৃহস্পতিবার বিকালে (৫ সেপ্টেম্বর) ঠিক একইরকম ঘটনা ঘটল দেশটির রাজধানী দিল্লির মালব্যনগর এলাকায়। তবে জরিমানা করার পর সেই মত্ত চালকের কাণ্ডটি দেশটির বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এসেছে।

সেসব সংবাদে প্রকাশ, বৃহস্পতিবার বিকেলে দিল্লির মালব্যনগর এলাকার একটি সড়কে মাতাল অবস্থায় দ্রুত গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে যাচ্ছিলেন এক ব্যক্তি। তার গাড়ি চালানোর ধরন দেখে সন্দেহ হয় পুলিশের। বাঁশিতে ফুৎকার দিয়ে তাকে থামিয়ে পুলিশ দেখেন, অ্যালকোহলের নেশায় বুঁদ হয়ে আছেন সেই ব্যক্তি।

মাতাল হয়ে গাড়ি চালানোয় তার ২৫ হাজার টাকা জরিমান করে পুলিশ। কিন্তু এতে ক্ষেপে যান সেই মাতাল মোটরসাইকেলচালক।

রাগে নিজের বাইকেই আগুন ধরিয়ে দেন তিনি। পুলিশ জানায়, মালব্যনগর এলাকার ত্রিবেণী কমপ্লেক্সের ভেতরে গাড়িতে আগুন দেয় ওই ব্যক্তি।

এ ঘটনায় ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত রোববার থেকে ট্রাফিক আইন ভাঙলে বর্ধিত হারে জরিমানা দিতে হবে বলে সংশোধিত নতুন আইন প্রণয়ন করে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

সেখানে জানানো হয়, দেশটির সংশোধিত মোটর ভেহিকেলস অ্যাক্ট অনুযায়ী নেশাগ্রস্থ অবস্থায় গাড়ি চালালে জরিমানা করা হবে ১০ হাজার টাকা।

এর পর থেকেই দেশটির নানা প্রান্ত থেকে বিপুল অঙ্কের জরিমানার খবর আসা শুরু করে।

বুধবার গুরগাঁওতে একাধিকবার ট্রাফিক আইন ভাঙার জন্য এক ব্যক্তিকে ২৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বেঙ্গালুরুতে এক ব্যক্তি মত্ত অবস্থায় গাড়ি চালাতে গিয়ে ধরা পড়ায় ১৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর