,



তিন বছরে বিদ্যুৎ বিভাগের ২৯৬১ জনের বিদেশ সফর সতর্ক করেছে সংসদীয় কমিটি

বিগত তিন বছরে বিদ্যুৎ বিভাগের প্রায় তিন হাজার কর্মকর্তা বিদেশ সফর করেছেন বলে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিকে জানিয়েছে মন্ত্রণালয়। কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনাকালে বিদেশ ভ্রমণ নিয়ে নানা অভিযোগের কথা উঠে এসেছে। আলোচনা শেষে বিদেশ সফরের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সর্তক থাকতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সংসদ সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি মো. শহীদুজ্জামান সরকার। বৈঠকে কমিটির সদস্য প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, মো. আবু জাহির, মো. আছলাম হোসেন সওদাগর, মোছা. খালেদা খানম ও বেগম নার্গিস রহমান এবং বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. আহমদ কায়কাউসসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে উত্থাপিত প্রতিবেদনে দেখা গেছে, গত ৩বছরে বিদ্যুৎ বিভাগের ২৯৬১জন কর্মকর্তা বিভিন্ন দেশ সফর করেছেন।

সব কর্মকর্তাই এ বিভাগের অধীন চলমান প্রকল্প থেকে সফরে যান। বৈঠকের কার্যবিবরণী থেকে জানা গেছে, টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (¯্রডো) ১৪ জন, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের (বাপবিরো) ৫৪০ জন, বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের ৭৩০ জন, পাওয়ার সেলের ৫১ জন, নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেডের (নওপাজিকো) ৮১ জন, পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিডেটের (পিজিসিবি) ৯৮৮ জন, ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড এর (ডেসকো) ২৬৮ জন, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ওজোপাডিকো) ৮৩ জন, আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি লিমিটেডের (এপিএসসিএল) ১০ জন, রুরাল পাওয়ার কোম্পানি লিমিডেটের (আরপিসিএল) ১২ জন, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) ৯৬ জন, কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিডেটের (সিপিজিসিবিএল) ২৩ জন, ইলেকট্রিসিটি জেনারেশন কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেডের (ইজিসিবি) ৪৫ জন এবং বি-আর পাওয়ার জোন লিমিটেডের ২০ জন কর্মকর্তা গত ৩ বছরে বিদেশ সফর করেছেন। এই বিদেশ সফরকে ৪টি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে।

এগুলো হলো প্রশিক্ষণ,কর্মশালা, সেমিনার ও অন্যান্য।

এর মধ্যে প্রশিক্ষণে ১ হাজার ২২৬ জন,কর্মশালায় ৮ জন,সেমিনারে ২৮ জন এবং অন্যান্য কারণে ১ হাজার ৭০৩ জন বিদেশ সফর করেছেন। মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, অন্যান্য কারণের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে প্রি-শিপমেন্ট ইন্সপেকশন (পিএসআই), ফ্যাক্টরি পরির্দশন ও মালামালের গুণগত মান যাচাই। কম সময়ে অধিক কর্মকর্তা বিদেশ সফর করায় বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন কমিটির সদস্যরা। তারা এতো কর্মকর্তার বিদেশ সফর বিষয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিবের বক্তব্য জানতে চান। তিনি বলেন, সব সফর হয়েছে রাষ্ট্রীয় প্রয়োজনের তাগিদে। এখানে অস্বচ্ছতার কোন সুযোগ নেই। জবাবে সংসদীয় কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রয়োজনে সফর ঠিক আছে। তবে অপ্রয়োজনে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিরা যাতে একটিও বিদেশ সফর করতে না পারেন সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। এ বিষয়ে কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান সরকার সাংবাদিকদের বলেন, সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফরকে ঘিরে বিভিন্ন গণমাধ্যমে নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশ পাচ্ছে।

দেখা গেছে, বিদ্যুৎ বিভাগ থেকেও গত ৩বছরে প্রায় ৩ হাজার কর্মকর্তা বিদেশ সফর করেছেন। কমিটির পক্ষ থেকে জানতে চাওয়া হয়েছিল, এতো বিদেশ সফর কেনো। তারা বলেছে, রাষ্ট্রীয় প্রয়োজনে এ সফর। তবে আমরা বলেছি, স্বচ্ছতা নিশ্চিত করে সফর করতে হবে। সংসদীয় কমিটি বিষয়টি কঠিনভাবে নজরদারি করছে বলেও তিনি জানান। বৈঠকে অফগ্রিডে এলাকায় নবায়নযোগ্য জ্বালানীর মাধ্যমে বিদ্যুতায়নে গৃহীত কার্যক্রম সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। আলোচনা শেষে বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে রুপান্তরিত করতে ২০২০ সালের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়ন নিশ্চিত করতে মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। এছাড়াও বিদ্যুতের অবৈধ সংযোগ ও চুরি রোধে মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করার তাগিদ দেয়া হয়।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর