,



ম্যানসিটি-পিএসজির গোলবন্যার রাতে ঘাম ঝরল রিয়ালের জিতেছে জুভেন্টাস, বায়ার্ন, টটেনহ্যাম, অ্যাটলেটিকোও

বাঙ্গালী কণ্ঠ ডেস্কঃ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপপর্বে মঙ্গলবার রাতে আট ম্যাচে মাঠে নেমেছিল ১৬ দল। প্রত্যাশিত জয় পেয়েছে সব জায়ান্টই। সবমিলিয়ে গোল হয়েছে ৩০টি। ম্যানসিটি, পিএসজি, টটেনহ্যামের গোলবন্যার রাতে রিয়াল, বায়ার্নের ঘাম ঝরিয়েছে প্রতিপক্ষরা। 

ক্লাব ব্রুগের মাঠ থেকে এমবাপের হ্যাটট্রিকে ৫-০ গোলের জয় নিয়ে ফিরেছে পিএসজি। ঘরের মাঠে রেডস্টার বেলগ্রেডকে ৫-০ গোলে হারিয়েছে টটেনহ্যাম। আটালান্টাকে নিজ মাঠে ৫-১ গোলে উড়ে দিয়েছে ম্যানসিটি।

তবে গ্যালাতাসারের মাঠ থেকে টেনেটুনে ১-০তে জিতে এসেছে রিয়াল। অলিম্পিয়াকোসের মাঠে বায়ার্নের জয় ৩-২ গোলে। জুভেন্টাস সেখানে ঘরের মাঠে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছে লোকোমোটিভ মস্কোকে। আর অ্যাটলেটিকো ১-০তে জিতেছে বেয়ার লেভারকুসেনের বিপক্ষে।

‘এ’ গ্রুপে জার্মান মিডফিল্ডার টনি ক্রুসের গোলে তুরস্কের দল গ্যালাতাসারেকে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। স্প্যানিশ জায়ান্টদের এটি চলতি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মৌসুমে প্রথম জয়। ম্যাচের ১৮ মিনিটে জাল খুঁজে নেন ক্রুস।

একই গ্রুপে কাইলিয়ান এমবাপের হ্যাটট্রিক ও মাউরো ইকার্দির জোড়া গোলে ক্লাব ব্রুগেকে ৫-০তে উড়িয়ে দিয়েছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেইন।

ফরাসি জায়ান্টদের সপ্তম মিনিটেই এগিয়ে দেন ইকার্দি। আর্জেন্টাইন তারকার পরের গোলটি ৬৩ মিনিটে। মাঝে ৬১ মিনিটে নিজের প্রথম গোল খুঁজে পাওয়া এমবাপে ৭৯ ও ৮৩ মিনিটে জাল খুঁজে নিয়ে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন।

এই জয়ে তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ শীর্ষে আছে পিএসজি। সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্টে টেবিলের দুইয়ে রিয়াল।

অন্যদিকে, ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ‘সি’ গ্রুপে আটালান্টাকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি। সার্জিও আগুয়েরো জোড়া গোল করেছেন, রাহিম স্টার্লিংয়ের থেকে এসেছে হ্যাটট্রিক।

নিজ মাঠে ম্যাচের ২৮ মিনিটে রুশলানের পেনাল্টিতে আটালান্টার এগিয়ে যাওয়া দেখে সিটিজেনরা। পরে ৩৪ মিনিটে গোলের খাতা খোলেন আগুয়েরো। সমতা আনার চার মিনিট পর স্পটকিকে লিড আনেন এ আর্জেন্টাইন। দ্বিতীয়ার্ধে জ্বলে ওঠেন স্টার্লিং। ম্যাচের ৫৮, ৬৪ ও ৬৯ মিনিটে প্রতিপক্ষের জালে তিনবার বল পাঠান।

তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে নিজেদের গ্রুপে শীর্ষেই আছে পেপ গার্দিওলার দল।

গ্রুপ ‘বি’তে আরেক ইংলিশ জায়ান্ট টটেনহ্যাম হটস্পার ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে রেডস্টার বেলগ্রেডকে।

ম্যাচের নয় মিনিটেই হ্যারি কেনের গোলে লিড নেয় স্পাররা। হিউং-মিন সন ১৬ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। ৪৪ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি আনেন সন। ৫৭ মিনিটে এরিক লামেলা দলের চতুর্থ গোলটি করার পর ৭২ মিনিটে কেন নিজের দ্বিতীয় ও বড় জয়ের পঞ্চম গোলটি পেয়ে যান।

একই গ্রুপে অলিম্পিয়াকোসের মাঠে ৩-২ গোলের জয়ে বড় পরীক্ষা দিতে হয়েছে জার্মান জায়ান্ট বায়ার্ন মিউনিখকে।

ম্যাচের ২৩ মিনিটে ইয়োসেফের গোলে লিড নিয়েছিল অলিম্পিয়াকোস। রবার্ট লেভানডোভস্কি ৩৪ মিনিটে সমতা ফেরান। ৬২ মিনিটে দ্বিতীয় গোলে লিড এনে দেন জার্মান তারকা। ৭৫ মিনিটে টোলিস্সো গোল করে স্বস্তিতেই রেখেছিলেন জার্মানদের।

কিন্তু গুইর্হেমে ৭৯ মিনিটে অলিম্পিয়াকোসের দ্বিতীয় গোলটি করে ম্যাচ জমিয়ে দেন। শেষঅবধি অবশ্য বায়ার্নই হাসিমুখে মাঠ ছাড়ে।

তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্টে তাতে গ্রুপ শীর্ষেই থাকল বায়ার্ন। সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্টে দুইয়ে টটেনহ্যাম।

গোলবন্যার রাতে গ্রুপ ‘ডি’তে টাইট ম্যাচ হয়েছে দুটিই। ঘরের মাঠে আলভারো মোরাতার একমাত্র গোলে বেয়ার লেভারকুসেনকে হারিয়েছে ডিয়েগো সিমিওনের অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

গ্রুপের অন্য ম্যাচে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর গোল না পাওয়ার রাতে লোকোমোটিভ মস্কোকে ২-১ গোলে হারিয়ে পূর্ণ পয়েন্ট তুলেছে ইতালিয়ান জায়ান্ট জুভেন্টাস।

মস্কোর অ্যালেকেসির গোলে পিছিয়ে পড়ার পর ভয়েই ছিল জুভরা। পাওলো দিবালার জোড়া গোলে তারা স্বস্তিতে ফেরে। আর্জেন্টাইন তারকা ম্যাচের ৭৭ ও ৭৯ মিনিটে দুই মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে তিন পয়েন্ট এনে দেন তুরিনের দলটিকে।

এই গ্রুপে ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্টে শীর্ষে অ্যাটলেটিকো। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্টে গোলপার্থক্যে পিছিয়ে দুইয়ে রোনালদো-দিবালার জুভেন্টাস।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর