,



‘কণ্ঠ’ বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে ৮ নভেম্বর

এ বছর পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পাওয়া ব্যবসাসফল ও প্রশংসিত ছবির মধ্যে অন্যতম ‘কণ্ঠ’। এবার সাফটা চুক্তির আওতায় বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে। আগামী ৮ নভেম্বর আমদানিকৃত প্রতিষ্ঠান ইমপ্রেস টেলিফিল্মের তত্ত্বাবধানে দেশের ১০টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায় পরিচালিত ছবি ‘কণ্ঠ’।এ ছবিতেই রমিলা চৌধুরী চরিত্রে অভিনয় করে ভারতের দর্শক সমালোচকদের প্রশংসাস্নাত হয়েছেন বাংলাদেশের অভিনেত্রী জয়া আহসান। ‘কণ্ঠ’ মাত্র ১১ দিনেই পশ্চিমবঙ্গে আয় করেছে ২ কোটি রূপি। এই মন্দা বাজারে ১০০ তম দিন পূর্ণ করা ’কণ্ঠ’ শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয়, মুক্তি পেয়েছে দিল্লী, মুম্বাই, পুনে, আহমেদাবাদ, বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদে।পাশাপাশি লন্ডন সহ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১৬টি শহরে মুক্তি পেয়ে অভাবনীয় সাফল্য পেয়েছে। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান উইন্ডোজ এর আগে অলটাইম ব্লকবাস্টার ছবি হিসেবে বেলাশেষে, প্রাক্তন, পোস্ত, হামি উপহার দিয়েছিল। তবে বিদেশে আয়ের দিক থেকে ‘কণ্ঠ’ অতীতের সব রেকর্ডকেও ছাড়িয়ে গেছে। মালয়ালাম ভাষাতেও ‘মেরি আওয়াজ সুনো’ নামে নির্মিত হচ্ছে ‘কণ্ঠ’। যে ছবিতে মূল চরিত্রে অভিনয় করবেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত জয়সুরিয়া।পরিচালক শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় বলেন, শুধুমাত্র ব্যবসায়িক সাফল্য নয়, ‘কণ্ঠ’ ছিল আমাদের জন্য একটি অভিযান। বিখ্যাত টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতাল আমাদের সাথে একাত্ম হয়ে জানিয়েছে, প্রত্যেক পরিবার, ডাক্তারদের বাধ্যতামূলকভাবে ‘কণ্ঠ’ দেখা উচিত। তারা ইতিমধ্যেই ইউনিসেফ, ইউনেস্কো, ডব্লিউ এইচ ও, শ্রীলংকা, নেপালে ছবিটি প্রদর্শনের জন্য পরামর্শ দিয়েছে। খুব শিগগীরই ইউনিসেফে প্রদর্শিত হবে ‘কণ্ঠ’।এর বাইরে ‘কণ্ঠ’ কেন্দ্র করে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে তৈরি হচ্ছে ‘কণ্ঠ’ ক্লাব। যারা কণ্ঠনালীর ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের মধ্যে আড্ডা-আলোচনা, বিনোদনের ব্যবস্থার মাধ্যমে সম্পর্ক গড়ে তোলাই এই ক্লাবের উদ্দেশ্য। শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় বলেন, কোনও রোগই যে শেষ কথা হতে পারেনা, জীবনীশক্তি বাঁচিয়ে রাখলে যে সবকিছুর অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা যায়-সে গল্পটিই বলার চেষ্টা করা হয়েছে এ ছবিতে। আমার বাবা বরিশালের মানুষ। তাই খুব ভালো লাগছে, বাংলাদেশের মানুষের কাছে ‘কণ্ঠ’ পৌঁছে যাচ্ছে। কারণ বাংলাদেশের মেয়ে জয়া আহসান এ ছবিতে কতটা ভালো অভিনয় করেছেন, তা না দেখলে কেউ বিশ্বাস করতে পারবেন না। জয়া আহসানকে নিয়ে বাংলাদেশের মতো আমরাও ভীষণভাবে গর্বিত, আমি গর্বিত। কারণ আমার পরিচালনায় জয়া অভিনয় করেছে, আমি জয়ার সাথে পর্দা ভাগ করেছি। ‘কণ্ঠ’ মুক্তি উপলক্ষে আমার মা, স্ত্রী, শ্বশুর শাশুড়ি, দিদি, নন্দিতা রায়, তার দিদি, প্রযোজনা সংস্থা উইন্ডোজের পুরো পরিবার বাংলাদেশে আসছি। আমি নিশ্চিত বাংলাদেশে আমাদের যারা শুভাকাঙ্খী-অনুসারী আছেন, তারা এ ছবিটি দেখে তাদের সুচিন্তিত মতামত জানাবেন।জয়া আহসান বলেন, দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষার পর ‘কণ্ঠ’ মুক্তি পাচ্ছে আমার দেশে। এ ছবিতে বাংলাদেশেরই একজন হিসেবে অভিনয় করেছি। যারা ভালো ছবি দেখতে চান, বিশেষ করে যারা আরজে কিংবা শিল্প-সংস্কৃতি নিয়ে কাজ করেন এবং বিশেষ করে যারা জীবনের কাছে নতুন অর্থ খুঁজছেন, বেঁচে থাকার নতুন অবলম্বন খুঁজছেন, তারা প্লিজ ‘কণ্ঠ’ দেখতে আসবেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর