,



বিশ্বনবি অন্যের জন্য নিজের জন্য দোয়া শিখিয়েছেন

বাঙালী কন্ঠ ডেস্কঃ সামাজিক জীবনে মানুষের চলাফেরায় পরস্পরের দেখা-সাক্ষাৎ হয়। দেখা-সাক্ষাতে একে অপরের কাছে দোয়া চায়। কেউ তার নিজের জন্য দোয়া চায়, আবার কেউ বাবা-মা, ছেলে-সন্তান বা আত্মীয়ের জন্য দোয়া চায়। এসব ক্ষেত্রে একে অপরের জন্য দোয়াও করে। কিন্তু মানুষের চলাফেরায় দেখা-সাক্ষাতে একে অপরের কাছে দোয়া চাইলে কী দোয়া করতে হবে? এ সম্পর্কে হাদিসের নির্দেশনাই বা কী?

একবার হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু-এর মা তাঁকে নিয়ে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন এবং তাঁর জন্য দোয়া চাইলেন। প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর প্রিয় খাদেম-এর জন্য দোয়াও করেছিলেন।

বর্তমান সময়ে যদি কেউ কারো কাছে দোয়া চায় তবে হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহুর জন্য করা এ দোয়াটি যথাযথ ও উপযুক্ত। যা সবার জন্য খুবই জরুরি।

হজরত আনাস ইবনে মালিক রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা, (একবার) আমার মা আমাকে নিয়ে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর কাছে গেলেন এবং বললেন, হে আল্লাহর রাসুল! আপনার এই ছোট খাদেম আনাস। আপনি তার জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করুন। তখন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এ বলে দোয়া করলেন-

(কেউ দোয়া চাইলে)
اللَّهُمَّ أَكْثِرْ مَالَهُ وَوَلَدَهُ، وَبَارِكْ لَهُ فِيمَا أَعْطَيْتَهُ
উচ্চারণ : আল্লাহুম্মাকছির মালুহু ওয়া ওয়া ওয়ালাদুহু ওয়া বারিক লাহু ফিমা আত্বাইতাহু। (বুখারি ও মুসলিম)

অর্থ : হে আল্লাহ! আপনি তার সম্পদ ও সন্তান বাড়িয়ে দিন। আর আপনি তাকে যা (রিজিক/জীবিকা ও নেয়ামত) দিয়েছেন তাতে বরকত দান করুন।’

হাদিসের অনুকরণে প্রত্যেকেই নিজেদের জন্য এ দোয়াটিও বেশি বেশি করা জরুরি। আর তাহলো-
اَللهُمَّ أكْثِرْ مَالِىْ وَ وَلَدِىْ وَ بَارِكْ لِىْ فِيْمَا أعْطَيْتَنِىْ وَ أطِلْ حَيَاتِىْ عَلَى طَاعَتِكَ وَ اَحْسِنْ عَمَلِىْ وَاغْفِرْلِىْ
উচ্চারণ : আল্লা-হুম্মাকছির মালি, ওয়া ওয়ালাদি, ওয়া বারিকলি ফিমা আত্বায়তানি ওয়া আত্বিল হায়াতি আলা ত্বাআতিকা ওয়া আহসিন আমালি ওয়াগফিরলি।

অর্থ : ‘হে আল্লাহ! আপনি আমার সম্পদ, সন্তান বাড়িয়ে দিন। আপনি আমাকে যা দিয়েছেন তাতে বরকত দান করুন। আপনার আনুগত্যের ওপর আমার হায়াত বাড়িয়ে দিন। আমার আমল (ইবাদত-বন্দেগি)কে সুন্দর করে দিন এবং আমাকে ক্ষমা করুন।

সুতরাং কেউ কারো কাছে দোয়া চাইলে হাদিসের নির্দেশনা মোতাবেক দোয়া করা। আবার হাদিসের অনুসরণ ও অনুকরণে নিজেদের জন্যও এভাবে দোয়া করাই উত্তম।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে হাদিসের নির্দেশনা অনুযায়ী একে অপরের জন্য দোয়া করার পাশাপাশি নিজেদের জন্য দোয়া করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর