,



বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ নানা আয়োজনে পালিত হল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তিলাভ করে তার প্রিয় স্বদেশ, স্বাধীন বাংলাদেশে ফিরে আসেন। দিবসটিতে মুজিববর্ষের ক্ষণগণনা ছিল মূল আকর্ষণ। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন, গতকাল শুক্রবার বাদ জুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ রাজধানীর সকল মসজিদে মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সকালে রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরস্থ বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে রক্ষিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পাঞ্জলী অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর স্বাধীনতার এই মহান স্থপতির প্রতি সম্মান প্রদর্শনের অংশ হিসেবে সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

পরে আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে সঙ্গে নিয়ে দলের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতিকৃতির বেদীতে আরেকটি পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। এরপর একে একে আওয়ামী লীগ এবং এর বিভিন্ন সহযেগী সংগঠন যেমন মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর এবং দক্ষিণ যুব লীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুব মহিলা লীগ, কৃষক লীগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ নির্বাচন প্রস্তুতি কমিটি কমান্ড সহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণ করা হয়।
এবার উদযাপনে ভিন্নতা নিয়ে এসেছে ‘মুজিব বর্ষ’। এ বছর ১৭ মার্চ জাতির পিতার জন্ম শতবার্ষিকী থেকে আগামী বছর ২০২১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পর্যন্ত সময়কে ‘মুজিব বর্ষ’ ঘোষণা করে বছরব্যাপী জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে যে উদযাপন তার ‘ক্ষণ গণনা’ (কাউন্টডাউন) শুরু হয় গতকাল। বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্যারেড স্কোয়ারে প্রধানমন্ত্রী এবং জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা এই ‘ক্ষণ গণনা’র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

এদিকে গতকাল শুক্রবার বাদ জুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ রাজধানীর সকল মসজিদে মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঢাকা-৫ নির্বাচনী এলাকায় মসজিদে মসজিদে বিশেষ দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ডেমরা থানা আওয়ামী লেেীগ সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান মোল্লা সজলের নেতৃত্বে ডেমরা-সারুলিয়া, আমুলিয়া, বামৈল-কোনাপাড়া, মাতুয়াইল, যাত্রাবাড়ী ও কদমতলীসহ বিভিন্ন মসজিদে দোয়া ও মিলাদ শেষে মুসল্লিদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু‘র নেতৃত্বে মসজিদে মসজিদে বিশেষ দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করা হয়। একইসাথে বাদ জুমা নামাজ শেষে তিনি ছিন্নমূল গরিব-দুস্থ অসহায় মানুষের মধ্যে তবারক বিতরণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ারী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী আবুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, ৩৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মঈনুর রহমান জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন, ৩৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ আহমেদ প্রমুখ। পুরান ঢাকার ৩৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর আউয়াল হোসেন নিজ এলাকায় জুমার নামাজের শেষে বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়ায় অংশ নেন। নামাজ শেষে গরিব-দুস্থ ও অসহায় মানুষের মধ্যে তবারক বিতরণ করা হয়। বঙ্গবন্ধু জয়বাংলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সুজাউল করিম চৌধুরী বাবুল আরামবাগে এতিম-অসহায়, ছিন্নমূল মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউনুস আকবর ও মেজর (অব.) আবদুল সালাম ও রেজাউল করীম সাগরসহ ঢাকা মহানগর ও কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ।

মিলাদ ও মোনাজাত পরিচালনা করেন বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ মুহিব্বুল্লাহিল বাকী নদভী। মিলাদ মাহফিলে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পরিচালক মুহাম্মদ মহীউদ্দিন মজুমদারসহ বিপুল সংখ্যক ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। মাহফিলে বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনা করে মহান আল্লাহর দরবারে মোনাজাত করা হয়।

চট্টগ্রাম : নগরীর কেন্দ্রস্থল এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেশিয়াম মাঠে মুজিব বর্ষের ক্ষণগণনার প্রধান অনুষ্ঠানস্থলে এবং বন্দরনগরীতে জনবহুল স্থানে স্থাপিত ৪টি ‘কাউন্ট ডাউন ক্লক’ ঘিরে জুমার নামাজের পর থেকেই হাজারো মানুষ সমবেত হন। মাঠে জায়গা না পেয়ে সড়কে অবস্থান নেন অনেকেই। স্টেডিয়াম, জিমনেশিয়াম মাঠ ও আশেপাশ এলাকা বার্ণিল সাজে সেজেছে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন, জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সরকারি আধা-সরকারি স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা, রাজনৈতিক ও সামাজিক, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মুজিব বর্ষ সূচনা উপলক্ষে বিস্তারিত কর্মসূচি নিয়েছে। বিভিন্ন স্থানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধুর বর্ণিল জীবনী তুলে ধরা হচ্ছে নতুন প্রজন্মের মাঝে।
নগর আওয়ামী লীগ
মুজিব বর্ষের সূচনা এবং বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আরাধ্য সোনার বাংলা বাস্তবায়নে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অভিষ্ঠ লক্ষ্যের দিকে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছেন।
নগরীর টিআইসি প্রাঙ্গণে উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী। আরও বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি নঈম উদ্দীন চৌধুরী, ইব্রাহীম হোসেন চৌধুরী বাবুল, খোরশেদ আলম সুজন, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম, উপদেষ্টা শফর আলী প্রমুখ।

এদিকে, মুজিব বর্ষ সূচনা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে নগরীর বন্দর-পতেঙ্গা এলাকার সংসদ সদস্য সাবেক চিটাগাং চেম্বার সভাপতি এম এ লতিফের উদ্যোগে আগ্রবাদে পুরাতন চেম্বার হাউস মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নগর আওয়ামী লীগের শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক মাহাবুবুল হক মিয়া এতে সভাপতিত্ব করেন। সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী, মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, হোসেন মুরাদ, আব্দুল আজিজ মোল্লা প্রমুখ।

যশোর : জাতীয় কর্মসূচির সঙ্গে সমন্বয় করে যশোরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ক্ষণগণনা অনুষ্ঠান হয়। জেলা প্রশাসনের আয়োজনে টাউন হল ময়দানে মুজিব বর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ক্ষণগণনা অনুষ্ঠানে যশোর টাউন হল ময়দানে মানুষের ঢল নামে। যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনার ঘড়ি উদ্বোধন করা হয়েছে।
রাজশাহী : স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ। গতকাল শুক্রবার সকালে মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের পাশে স্বাধীনতা চত্বরে মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

বিকেলে ক্ষণগণনা কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষ্যে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নগর ভবন ও সাহেব বাজার বড় মসজিদ চত্বরে ২টি ক্ষণগণনা যন্ত্র স্থাপন এবং উক্ত অনুষ্ঠান সরাসরি স¤প্রচার আয়োজন করা হয়। নগর ভবন ও সাহেব বাজারে বিপুল সংখ্যক সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতাকর্মীবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, স্কুল-কলেজ-বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দসহ সামাজিক, সাংস্কৃতিক, স্বেচ্ছাসেবী, পেশাজীবীসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ অংশগ্রহণ করেন। এরপর সন্ধ্যায় নগর ভবনের গ্রিনপ্লাজায় অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
সিলেট : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের ক্ষণগণনায় সিলেটের দুটি স্থানে উদ্বোধন করা হয়েছে কাউন্টডাউন মঞ্চ। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে নগরীর হুমায়ুন রশীদ চত্বর ও টিলাগড় পয়েন্টে বিকাল সোয়া ৫টার দিকে এ মঞ্চ দুটি উদ্বোধন করা হয়। নগরীর টিলাগড় পয়েন্টে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে কাউন্টডাউন (ক্ষণগণনা) মঞ্চের উদ্বোধন করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বিভাগীয় কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান, ডিআইজি মো. কামরুল আহসান, জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম, পুলিশ কমিশনার এসএম গোলাম কিবরিয়া, পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন আহমদ, সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান, আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।

কক্সবাজার : জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে ক্ষণগণনার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আব্দুল মান্নান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. শিরিন আকতার, সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি, সংরক্ষিত আসনের এমপি কানিজ ফাতেমা মোস্তাক, কউক চেয়ারম্যান কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, ট্যুরিস্ট পুলিশের এসপি জিল্লুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এএইচএম মাহফুজুর রহমান।

দিনাজপুর : বিকেল সাড়ে ৪ টায় একাডেমী স্কুল প্রাঙ্গন থেকে বিশাল র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালি শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে যেয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে ফিরে আসে এবং ঢাকার সাথে একযোগে দিনাজপুরেও মুজিব বর্ষ ক্ষণগণনার উদ্বোধন করা হয়। জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলমসহ জেলার বিভিন্ন বিভাগ ও দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী এবং স্কুল কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়।
ভোলা : ভোলা জেলা ও উপজেলা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বর্ণাঢ্য আনন্দ র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। জেলা প্রশাসক মোহাম্দদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক এর সভাপতিত্বে ভোলা জেলা প্রশাসন, লালমোহন উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাবিবুল হাসান রুমির সভাপতিত্বে লালমোহন উপজেলা প্রশাসনসহ ভোলা জেলার সকল উপজেলায় এ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

ফরিদপুর : ফরিদপুর জেলা প্রশাসকের কার্যলয়ের সামনে থেকে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার এর নেতৃত্বে র‌্যালিতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. লোকমান হোসেন প্রমুখ।
গাইবান্ধা : গাইবান্ধা জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ সামছুউল হিরু, সাধারণ সম্পদক আবু বক্কর সিদ্দিক, সাংগঠনিক সম্পাদক মৃদুল মোস্তাফি ঝন্টুসহ জেলা উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।
এছাড়া স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ও মুজিব বর্ষের ক্ষণগণনা কর্মসুচি উদ্ধোধন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেছে গাইবান্ধা জেলা প্রশাসন। এ সময় বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক আ. মতিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আলমগীর হোসেন, প্রেসক্লাবের সভাপতি কেএম রেজাউল হক, সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবুসহ অন্যন্যরা।

গোপালগঞ্জ : সকাল ১০ টায় গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ ও টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধূরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, আওয়ামী লীগ নেতা শেখ রাকিব হোসেন, শেখ রুহুল আমিন, সিকদার নূর মোহাম্মদ দুলু, অ্যাড. মুন্সি আতিয়ার রহমান, শেখ মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, এস.এম আক্কাস আলী,এম বদরুল আলম বদর, গোপালগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এম. জুলকদর রহমান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইলিয়াস হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শেখ আবুল বাশার খায়েরসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঝালকাঠি : ঝালকাঠিতে আলোচনা সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির, ঝালকাঠি পৌরসভার মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান আরিফুর রহমান, নলছিটি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান, চেম্বার সভাপতি সালাহ উদ্দিন আহমেদ সালেকসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া ঝালকাঠিতে ক্ষণগণনা উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী। এর আগে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী, পুলিশ সুপার ফাতিহা ইয়াসমিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার মো. শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনিরসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ১০ হাজার মানুষ অংশ নেন।

ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল হাই, সংরক্ষিত নারী ২৭ আসনের সংসদ সদস্য খালেদা খানম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল করিম মিন্টুসহ অন্যানরা।
পাবনা : বিকাল ৫টায় মুজিব শতবর্ষের ক্ষণগণনা যন্ত্রের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ। এ সময় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ এবং সাধারণ মানুষ উপস্থিত হন। উদ্বোধনের পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়
সাতক্ষীরা : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ক্ষণগণনায় হাজারো কন্ঠে শুদ্ধ উচ্চারণে জাতীয় সংগীত আর প্রত্যয়োাদ্দীপ্ত স্লোগানে মুখরিত সাতক্ষীরা। পুলিশ প্রশাসনের নিরাপত্তার চাদরে মুড়িয়ে রাখা সাতক্ষীরা শহরের স্মরণকালের বৃহত্তম র‌্যালিতে সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি, জেলা প্রশাসক এস, এম মোস্তফা কামাল, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবুসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেরপুর : শেরপুর জেলা শহরে র‌্যালির নেতৃত্ব দেন জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় হুইপ আতিউর রহমান আতিক, জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব ও পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক এটিএম জিয়াউল ইসলাম ও শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম।
রাউজান (চট্টগ্রাম) : রাউজানে ক্ষণগণনা কার্যক্রমের উদ্বোধক ছিলেন ভারতীয় হাই কমিশনার শ্রী রীভা গাঙ্গুলী দাশ। প্রধান অতিথি ছিলেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কীত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারতীয় হাই কমিশনের প্রথম সেক্রেটারী আনিদ্য ব্যানার্জী, সেকেন্ড সেক্রেটারী শুভাশীষ সিংহা।

বালাগঞ্জ (সিলেট) : সিলেটের ওসমানীনগরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. তাহমিনা আক্তার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ওসমানীণগর সার্কেল সাইফুল ইসলাম, ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাশেদ মোবারক, প্রমূখ।
বামনা (বরগুনা) : বরগুনার বামনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবরিনা সুলতানার সভাপতিত্বে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস ও ক্ষণগণনার শুভ উদ্ভোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. সাইতুল ইসলাম লিটু।

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও মুজিববর্ষ উৎযাপন উপলক্ষে পৌর আওয়ামীল লীগের সভাপতি ও মেয়র আঃ বারেক মোল্লার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে একটি র‌্যালি বের করেন। এছাড়া সকাল সাড়ে ৯টায় পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি,পৌর মেয়র আ. বারেক মোল্লার সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন কুয়াকাটা পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অনন্ত মুখার্জী, পৌর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি, প্যানেল মেয়র মো. পান্না মিয়া, প্রমুখ।

কুলিয়ারচর (কিশোরগঞ্জ) : কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে জন্ম শতবার্ষিকীর ক্ষণগণনার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ইয়াছির মিয়া,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাউছার আজীজ।

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহের নান্দাইলে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন নান্দাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেজর জেনারেল আব্দুস সালাম আরসিডিসিএসপি (অব.) বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি আমিনুল ইসলাম শাহান, সাধারণ সম্পাদক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূইয়াসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। অপর দিকে নান্দাইল উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ আব্দুর রহিম সুজনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আনোয়রুল আবেদীন খান তুহিন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ জুয়েল, পৌরসভার মেয়র রফিক উদ্দিন ভূইয়া প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

রাজারহাট(কুড়িগ্রাম) : বিকালে রাজারহাট পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহা: যোবায়ের হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও রাজারহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদ ইকবাল সোহরাওয়ার্দ্দী বাপ্পি।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর