,



ঘুরতে ফিরতে শসা খান ফল পাবেন হাতেনাতে

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ আধুনিক লাইফস্টাইল, অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাস, অসময়ে খাওয়া, অসময়ে ঘুম- যার ফলে বাড়ে ওজন। অস্বস্তিতে থাকেন মেদভুরি নিয়ে। শরীরে মেদ জাঁকিয়ে বসা মানেই একাধিক মারণ রোগের হাতছানি। যে প্রকারে হোক ওজন কমাতেই হবে।

তাই অনেকে বেছে নিয়েছেন ব্যালান্স ডায়েট। খাওয়া-দাওয়ায় দিয়েছেন শক্ত লাগাম টেনে। তবুও মিলছে না সুফল? রোজই বাড়ছে ওজন? তবে ঘুরতে ফিরতে শসা খাবেন। রেজাল্ট পাবেন হাতে হাতে।

বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিচ্ছেন, ঘুরতে ফিরতে শসা খাওয়ার। প্রত্যেক খাবারের সঙ্গেই খান শসা। কেননা এই সবজিটি ভিটামিন সি, ম্যাগনেশিয়াম, পটাসিয়ামের ভরপুর। এতে ক্যালরির পরিমাণও সামান্য। এছাড়াও এতে পানির পরিমাণ বেশি, রয়েছে ফাইবারও। তাই ওজন কমানোর মোক্ষম উপায় হলো শসা খাওয়া। এটাই হল কিউকাম্বার ডায়েট।

একাধিক গবেষণায় প্রমাণ মিলেছে, ছোট থেকেই প্রতিদিনের ডায়েটে শসা থাকা মানে রোগমুক্ত জীবন পাওয়ার স্বপ্নপূরণ। কারণ, শরীরকে কর্মক্ষম রাখতে শসার কোন বিকল্প নেই বললেই চলে। নিয়মিত শসা খেলে ছোট-বড় কোন রোগই ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না।

বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী, ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে এবং দীর্ঘদিন যৌবন ধরে রাখতে কিউকাম্বার ডায়েটের জবাব নেই। ডায়েটিশিয়ান এবং বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অক্ষরে অক্ষরে পালন করলে ফারাক চোখে পড়বে দিন সাতেকেই।

শুধু ওজন কমাতে কিউকাম্বার ডায়েটই নয়, সুগার নিয়ন্ত্রণ এবং ক্যান্সার প্রতিরোধেও শসার উপকারিতা বলে শেষ করা যাবে না। প্রত্যেকটা খাবারের পরেই তাই শসা মাস্ট।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর