,



বিষয়টি আমাকে খুব পীড়া দিচ্ছে

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ। বড় পর্দায় ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী’, ‘অগ্নি’, ‘ছুঁয়ে দিলে মন’, ‘অস্তিত্ব’, ‘প্রেমী ও প্রেমী’, ‘ঢাকা অ্যাটাক’, ‘সাপলুডু’ সহ বেশ কিছু সিনেমায় বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করে এরইমধ্যে পেয়েছেন দর্শকপ্রিয়তা। বর্তমানে সেলফ কোয়ারেন্টিনে বাসায় আছেন তিনি। এটিসহ নানা বিষয়ে তার সঙ্গে কথা বলে লিখেছেন কামরুজ্জামান মিলু

সেলফ কোয়ারেন্টিনে রেখেছেন নিজেকে। বাসায় সময় কাটাচ্ছেন কিভাবে? 
আমাকে যারা কাছ থেকে চেনে তারা জানে কাজ ও জিমের বাইরে আমি বাসাতে থাকতেই পছন্দ করি। একলা থাকতে ভালো লাগে আমার। এটি  আমার জন্য নতুন না। তাই আমার কাছে এ বিষয়টি ইন্টারেস্টিং।

বাড়ির  ছাদে সকাল ও রাতে দু’বার করে ব্যায়াম করছি। এরপর বিশ্রাম, খাওয়া, বই পড়া, বাড়ি গোছানো, মুভি দেখা হচ্ছে। মা বাসায় আছেন। উনার সঙ্গেও গল্প করে সময় কাটাচ্ছি। এই তো এভাবেই দিন-রাত কেটে যাচ্ছে।

আপনার মা কেমন আছেন এখন?
মা এখন ঢাকায় আমার সঙ্গেই আছেন। শারীরিকভাবে আগের চেয়ে এখন একটু ভালো আছেন। অনেক কম টাকা বেতন ছিল আমার মায়ের। সেই বেতনে এক রুমের বাড়িতে তিনি আমাদের বড় করেছেন। অনেক কষ্ট করেছেন তিনি। আমার কাছে মায়ের জায়গা সবকিছুর উর্ধ্বে। এমনও তো হতে পারতো যে, তার জন্য কিছু করার যোগ্যতা আমার হয়নি। কিন্তু যেহেতু যোগ্যতা হয়েছে তাই মায়ের জন্য কিছু করার চেষ্টা করছি। মা-ও আমাকে ছাড়া এখন অন্য কোথাও থাকেন না। গত চার বছরের অসুস্থতার মধ্যে দুই বছর ধরে মা আমার কাছেই আছেন।

করোনা বিষয়ে আপনার ভক্তদের উদ্দেশে কি কিছু বলার আছে?
আমি প্রায় সবার মধ্যে এক ধরনের উদাসীনতা দেখতে পাচ্ছি। বিষয়টি আমাকে খুব পীড়া দিচ্ছে। আমি শুধু বলবো ইন্টারনেট সংযোগ তো প্রায় সবার কাছেই আছে। তাই লোকের কথা না শুনে দেখুন করোনা ভাইরাসে বিশ্বের কোন দেশে কতজন আক্রান্ত হয়েছেন বা এখনো হচ্ছেন। কতজন মারা গেছেন এটা জানুন। এই ভাইরাস কতটা ভয়াবহ এটাও ভাবুন। ন্যূনতম যাদের শিক্ষা আছে তারা অন্তত বুঝতে পারবে যে, উন্নত দেশগুলো যেখানে চিকিৎসা দিতে গিয়ে ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছে, নাকানি-চুবানি খাচ্ছে সেখানে তো আমাদের দেশ অনেক ছোট। অনেক ঘনবসতির দেশে বাস করছি আমরা। উন্নত দেশে যদি ঘন্টায় ২ জনকে অ্যাটাক করে তাহলে আমাদের দেশে ঘন্টায় ১৫ জন বা তারও বেশি অ্যাটাক করবে। সচেতন হতে হবে। এটা বুঝতে পিএইচডি করা লাগে না। এজন্য ১৫ দিনের মতো বাড়িতে থেকে দেখতে পারেন। জানি এটা সহজ না। তারপরও তো চেষ্টা করে দেখতে ক্ষতি কি!

পরবর্তীতে কি সিনেমা নিয়ে দর্শকের সামনে হাজির হচ্ছেন?
সব ঠিক হয়ে গেলে আসছে ঈদুল ফিতরে সানী সানোয়ার এবং ফয়সাল আহমেদ পরিচালিত ‘মিশন এক্সট্রিম’ সিনেমাটি নিয়ে দর্শকের সামনে হাজির হবো। তবে আমার চাওয়া বর্তমান পরিস্থিতি ঠিক হোক। তারপর কাজের বিষয়টি সকলকে জানাবো।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর