,



ডায়াবেটিস রোগীর ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখবে যে জুস

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে সঠিক খাদ্যাভাস ও শরীরচর্চার বিকল্প নেই। তবে সঠিক খাদ্য কোনগুলো; তা অনেকেরই অজানা। খুবই সাধারণ কিছু শাক-সবজি ডায়াবেটিস রোগীর জন্য হতে পারে আদর্শ খাবার। যা প্রায়শই তারা এড়িয়ে যান!

ডায়াবেটিসের বিভিন্ন ধরন আছে যেমন- টাইপ ১, টাইপ ২ এবং গর্ভকালীন ডায়াবেটিস। ডায়াবেটিস রোগীর জীবনযাত্রায় পরিবর্তন আনতে অ্যালকোহল, ক্যাফেইন, ধূমপানের মতো ক্ষতিকর অভ্যাসগুলো এড়ানো উচিত।

ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে আনতে সবুজ শাক-সবজি খাওয়ার বিকল্প নেই। পাশাপাশি প্রাণীজ প্রোটিন, প্রক্রিয়াজাত খাবার, প্যাকটে পানীয় এমনকি মাংস খাওয়ার ক্ষেত্রেও বাঁধা-নিষেধ আছে।

jagonews24

গবেষণায় দেখা গেছে, ডায়াবেটিসে আক্রান্তরা যদি প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণে গ্রিন জুস পান করেন; তবে ব্লাড সুগারের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে আসতে শুরু করে। ভালো ফলাফলের জন্য সকালে খালি পেটে গ্রিন জুস খেতে হবে। জেনে নিন কীভাবে তৈরি করবেন-

শসা, গ্রিন আপেল, লেবু, বাঁধাকপি, গাজর, পালং শাক, বিটরুট, টমেটো, রসুন, ধনেপাতা, লেটুসপাতা, আদা ও লাউ কুচি করে কেটে ব্লেন্ডারে জুস তৈরি করে পান করতে হবে প্রতিদিন এক গ্লাস। স্বাদের জন্য সামান্য হিমালয়ান পিংক সল্ট মেশাতে পারেন।

গ্রিন জুসের উপকারিতা

>> এ জুস ভিটামিন এ, কে, সি এবং আয়রনের দুর্দান্ত উত্স।

>> এটি হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ এবং সব ধরনের ডায়াবেটিসের ঝুঁকি হ্রাস করে।

>> গ্রিন জুস পান করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে, সেইসঙ্গে এনার্জি বুস্ট হবে।

>> অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ এ জুস পান করলে টাইপ ২ ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি মিলবে।

jagonews24

>> গ্রিন জুস পান করলে শরীরের ক্ষতিকর পদার্থ অর্থাৎ টক্সিন বের হবে। এতে রক্ত পরিষ্কার হবে।

>> এটি বিপাকক্রিয়া উন্নত করে। এ কারণে ডায়াবেটিস দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আসে।

>> গ্রিন জুস তৈরিতে যেসব উপাদান ব্যবহার করা হয়; সেগুলোতে থাকা পুষ্টিগুণ শরীরের জন্য খুবই উপকারী। নিয়মিত এটি পান করলে তফাৎ খুব জলদি টের পাবেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর