,



প্রাক-যোগ্যতাপত্র পেল কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল

ডেস্ক: কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চলের প্রি-কোয়ালিফিকেশন লাইসেন্স (প্রাক-যোগ্যতাপত্র) পেল নিটল-নিলয় গ্রুপ। সোমবার (৩ জুলাই) রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) পক্ষ থেকে এই প্রাক-যোগ্যতাপত্র দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি) মো. আবুল কালাম আজাদ, কিশোরগঞ্জ ইকোনমিক জোন ও নিটল-নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ, বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী,বেজার নির্বাহী সদস্য এম এমদাদুল হক, মো. হারুনুর রশিদ, মোহাম্মদ আইয়ুব এবং কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চলের উদ্যোক্তারা।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল নিটল-নিলয় গ্রুপের একটি উদ্যোগ। এটি ৯১ দশমিক ৬৩ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত। এটি পাকুন্দিয়া উপজেলার ভৈরব-কিশোরগঞ্জ সড়কের পাশে। এ অর্থনৈতিক অঞ্চল ভৈরব-কিশোরগঞ্জ রেল লাইনের গচিহাটা রেলস্টেশনের সাথে নিজস্ব রেললাইনের মাধ্যমে যুক্ত করা হয়েছে।

এ অর্থনৈতিক অঞ্চলের সঙ্গে বিদ্যুত ও গ্যাস সংযোগ রয়েছে। তা বিনিয়োগকারীদের সরবরাহের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পানি শোধনাগার, বর্জ্য শোধনাগার, অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা থাকবে। এ অর্থনৈতিক অঞ্চলে তৈরি পোশাক ও টেক্সটাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, চামড়াভিত্তিক শিল্প, ওষুধ, অটোমোবাইলস্, স্টিল, ইলেকট্রনিক্স, বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্র থাকবে।

বাণিজ্যিক উৎপাদনের প্রথম বছরে সেখানে ২ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে। পরের ৫ বছরের মধ্যে ১৫ হাজারের বেশি লোকের কর্মসংস্থানের আশা করছে বেজা।
প্রাক-যোগ্যতা সনদ পাওয়ায় কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চলকে ধন্যবাদ জানান আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, এর ফলে শিল্পে অবহেলিত হাওরাঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এটি দেশের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখবে।

উল্লেখ্য, বেজা ইতিমধ্যে ১৫টি বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার জন্য প্রাক-যোগ্যতার সনদ দিয়েছে। এরমধ্যে ৪টি বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চলকে চুড়ান্ত লাইসেন্স দেয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর