,



ফের আক্ষেপ নিয়ে ফিরলেন তামিম

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ আগের দুই ইনিংসের মতোই আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে শুরু করেন তামিম ইকবাল। আজ শনিবার পাল্লেকেলেতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে ক্যারিয়ারের ৩১তম অর্ধশতক তুলে নিয়ে পৌঁছে যান শতকের দোরগোড়ায়। কিন্তু না, আবারও তিন অঙ্ক ছুঁতে ব্যর্থ তামিম ফিরলেন আক্ষেপ নিয়ে, নার্ভাস নাইন্টিজেই।

দ্বিতীয় সেশনের প্রথম ঘণ্টার শেষ মুহূর্তেই সেই প্রভীন জয়াবিক্রমার স্পিনে স্লিপে দাঁড়ানো থিরিমান্নের হাতে ধরা পড়ে বিদায় নেন তামিম। ফেরার আগে ১৫০ বলে খেলেন ৯২ রানের আরেকটি আক্ষেপ ছড়ানো ইনিংস। যে ইনিংসে ছিল ১২টি চারের মার।

বিদায়ের আগে মোমিনুলের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৯৮ বলে গড়েন ৫৪ রানের জুটি। আর এরই সঙ্গে ইনিংসের ৪৪তম ওভারে গিয়ে তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ, ১৫১ রানের মাথায়। একইসঙ্গে এ নিয়ে টানা তিন ইনিংসেই অর্ধশতক হাঁকালেন তামিম।

৪৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৬৫ রান। মোমিনুল হক ৩০ রানে এবং মুশফিকুর রহিম ১২ রানে ক্রিজে আছেন।

এর আগে দুর্দান্ত ছন্দময় ব্যাটিংয়ে ওপেনিংয়ে ৯৮ রানের জুটি পাওয়ার পরেই জোড়া ধাক্কা খায় সফরকারীরা। শেষ দুই ম্যাচের মতোই ব্যাটিং করে ফিফটি তুলে নিয়ে শতকের লক্ষ্যেই ছিলেন তামিম। তাকে যোগ্যতর সঙ্গও দিচ্ছিলেন সাইফ। চারটি চার ও একটি ছক্কায় এই তরুণ পেয়ে যান ক্যারিয়ার সেরা রানও।

এ নিয়ে গত চার ইনিংস পর ওপেনিংয়ে অর্ধশতক ছাড়ানো জুটি পেল বাংলাদেশ। পেতে যাচ্ছিল কাঙ্ক্ষিত শতকের ওপেনিং জুটিও। তবে তা ওই পর্যন্তই। লঙ্কান দুই স্পিনারের জোড়া আঘাতে মুহূর্তেই সাইফ ও শান্তর উইকেট হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। যাতে ৯৯ রানেই ২ উইকেট হয়ে যায় দলের স্কোর।

চতুর্থ টেস্ট খেলতে নেমেও বড় ইনিংস খেলতে পারলেন না সাইফ হাসান। প্রভীন জয়াবিক্রমার স্পিনে আউট হয়ে ফিরলেন মাত্র ২৫ রান করেই স্লিপে ডি সিলভার হাতে ধরা পড়ে। যাতে দলীয় ৯৮ রানেই প্রথম উইকেট হারালো বাংলাদেশ। ফেরার আগে চারটি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান সাইফ।

এর পরের ওভারের শেষ বলেই রমেশ মেন্ডিসের স্পিনে স্লিপে থিরিমান্নের তালুবন্দি হয়ে ফেরেন আগের ম্যাচে ১৬৩ রানের ইনিংস খেলা শান্ত। মাত্র চারটি বল খেলেই। ফিল্ডিংয়ে দুটি ক্যাচ মিস করেই নিশ্চয়ই বেশ চাপে ছিলেন এই বাঁহাতি।

অর্থাৎ প্রথম সেশনে ২৭ ওভার শেষে সফরকারীদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৯৯ রান। ১১টি চার হাঁকানো তামিম ক্রিজে আছেন ৭০ রান নিয়ে।

উল্লেখ্য, সিরিজের প্রথম ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ১০১ বলে ৯০ রানের করেন টাইগার ড্যাশিং ওপেনার। দ্বিতীয় ইনিংসেও অভিজ্ঞ এই ব্যাটার অপারাজিত ছিলেন ৯৮ বলে ৭৪ রান করে।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটে ৪৯৩ রান তুলেই ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৪০ রান করেন লাহিরু থিরিমান্নে। দলনায়ক দিমুথ করুনারত্নের ব্যাট থেকে আসে ১১৮ রান। এছাড়া ওশাদা ফার্নান্ডো ৮১ ও নিরোশান ডিকওয়েলা করেন অপরাজিত ৭৭ রান।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নিয়ে সফল বোলার ছিলেন তাসকিন আহমেদ। এছাড়া তাইজুল, শরিফুল ও মিরাজ নেন একটি করে উইকেট।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর