,



মা ও স্বামীসহ গ্রেফতার দুই বোন

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ  রাজধানীর কলাবাগান ও পশ্চিম রাজাবাজার এলাকা থেকে ৫০ হাজার পিস ইয়াবাসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলো- মা মনোয়ারা বেগম (৬০) ও তার দুই মেয়ে আসমা ওরফে ডালিয়া (৩৭) এবং স্বপ্না বেগম (৩০);  ডালিয়ার স্বামী রবিউল ইসলাম (৪৭) এবং স্বপ্নার স্বামী শামীম আহমেদ এবং অপর একজনের নাম মাহমুদা রানী। তারা ইয়াবার ডিলার। নিজ বাসা থেকেই ঢাকার বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ীদের ইয়াবা সরবরাহ করে তারা। গতকাল রবিবার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর তাদের গ্রেফতার করে।
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জামাল উদ্দিন আহমেদ গতকাল বিকালে সাংবাদিক সম্মেলনে এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, সেনেট্যারি ব্যবসার আড়ালে তারা ইয়াবা ব্যবসা করে আসছিল। এটি একটি বড় সিন্ডিকেট। এ সিন্ডিকেটে হয়তো আরো সদস্য রয়েছে। গ্রেফতার ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্ত করে সিন্ডিকেটের অন্য সদস্যদের শনাক্ত ও গ্রেফতার করা হবে। তাদের গ্রেফতারের জন্য আমাদের অভিযান চলছে।
সূত্র জানায়, মনোয়ারা বেগম তার দুই মেয়ে ও মেয়ের স্বামীদের নিয়ে ইয়াবার সিন্ডিকেট তৈরি করেছে। সিন্ডিকেটে আরো কয়েকজন সদস্য রয়েছে। মনোয়ারা ইয়াবা ব্যবসা করে এলিফেন্ট রোডের ১৭৩ নম্বর ভবনে একটি ও উত্তর ধানমন্ডির ৪৮ নম্বর ভবনে একটি আলিশান ফ্ল্যাট কিনেছে। এলিফেন্ট রোডের ফ্ল্যাটে থাকে ডালিয়া ও তার স্বামী এবং উত্তর ধানমন্ডির ফ্ল্যাটে বাস করে স্বপ্না ও তার পরিবার। ফ্ল্যাট দুটির আনুমানিক মূল্য ছয় কোটি টাকা। এ দুটি ফ্ল্যাটসহ পশ্চিম রাজাবাজারের একটি ভাড়া ফ্ল্যাটে তারা ব্যবসা করে আসছিল। ভাড়া ফ্ল্যাটে থাকে তাদের মা মনোয়ারা বেগম। গ্রেফতার অপর নারী মাহমুদা রানী ব্যবসায়ীদের কাছে ইয়াবা পৌঁছে দিত।
জানা যায়, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ঢাকা মেট্টো উপ-অঞ্চলের উপ-পরিচালক মুকুল জ্যোতি চাকমার নেতৃত্বে গতকাল সকাল ৯টায় প্রথমে কলাবাগান থানা এলাকার উত্তর ধানমন্ডির ফ্ল্যাটে অভিযান চালানো হয়। এরপর অপর দুটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালানো হয়। ছয়জনকে গ্রেফতারসহ তিনটি ফ্ল্যাট থেকে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা, ইয়াবা বিক্রির ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা, একটি জিপ গাড়ি, মোবাইল ফোন ও কয়েককটি ব্যাংক লেনদেনের কিছু চেকবই উদ্ধার করা হয়। একটি চেকবইয়ে গত ১ জুলাই এক লাখ টাকা ব্যাংকে জমা দেওয়ার তথ্য পেয়েছেন তারা। মুকুল জ্যোতি চাকমা জানান, আজ সোমবার তাদের আদালতে হাজির করে রিমান্ড আবেদন করা হবে।
Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর