,



কুমিল্লার ঘটনায় সারা দেশে গ্রেপ্তার শতাধিক

গত বুধবার কুমিল্লায় পবিত্র ‘কোরআন’ অবমাননার খবরে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। পরে সেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিজিবি মোতায়েন করা হয়। এরপর রাতে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বিভিন্ন জেলায় সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনায় এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে শতাধিক ব্যক্তিকে। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে গত বুধবার রাতে সংঘর্ষের ঘটনায় সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ওই সংঘর্ষে নিহত চারজনের মরদেহ গতকাল পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। কুমিল্লায়ও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কুমিল্লায় ঘটে যাওয়া ঘটনার তদন্ত চলছে। এই ঘটনার পেছনে যারাই জড়িত থাকুক তাদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কুমিল্লার ঘটনার তদন্ত চলছে, আমরা অনেক তথ্য পাচ্ছি। এটা প্রযুক্তির যুগ তাদেরকে খুঁজে বের করা হবে এবং সে যেই হোক না কেন, যে ধর্মেরই হোক না কেন তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা অবশ্যই নেওয়া হবে। আমরা তা করেছি এবং করবো। ‘

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘বাংলাদেশে যখন উন্নয়নের পথে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে সেই সময় এই উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতেই এই সমস্যা তৈরি করা হয়েছে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, কুমিল্লার ঘটনাটি স্বার্থান্বেষী মহল ও চক্রান্তকারীদের উদ্দেশ্যমূলক কাজ বলে মনে করছে সরকার। যারা এই ঘটনায় জড়িত, তাদের শিগগিরই ধরা হবে। ইতোমধ্যেই কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে এবং সন্দেহভাজন কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কুমিল্লার পূজামণ্ডপে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনী তদন্ত শুরু করেছে।ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে হৃদয়বিদারক কিছু ঘটনাও ঘটেছে। চাঁদপুরে চারজন নিহত হয়েছেন। তবে সঙ্গে সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনী ও দায়িত্বরত ব্যক্তিরা নিয়ন্ত্রণের জন্য কাজ করেছেন।

দুর্গাপূজা উপলক্ষে নিরাপত্তার স্বার্থে কুমিল্লা, ঢাকা বিভাগের নরসিংদী, মুন্সিগঞ্জসহ ২২টি জেলায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজিবির পরিচালক (অপারেশন) লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফয়জুর রহমান।

কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেবে। ঘটনার পর চার প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাব, আনসার ও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। গতকাল সকালে শতাধিক আলেমের সঙ্গে প্রশাসনের বৈঠক হয়েছে। শুক্রবার জুমার নামাজের খুতবায় ইমামরা সম্প্রীতি নিয়ে বয়ান করবেন।

কুমিল্লার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, বুধবারের ঘটনায় পুলিশ চারটি মামলা করেছে। এরমধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ফয়েজ আহমেদকে (২৮) বুধবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ফয়েজের করা ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। তিনিই প্রথম উসকানি দেন। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। অপর তিন মামলায় ৪০ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। রাতে র‍্যাব একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর