,



গ্রেনেড হামলা হামলায় হতাহতদের জন্য ফখরুলকে কাঁদতে দেখা যায়নি

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ  আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে নিজ দলীয় নেতা-কর্মীদের জন্য কান্না করতে দেখা গেলেও গ্রেনেড হামলা ও পেট্রোলবোমা হামলায় হতাহতদের জন্য কান্না করতে দেখা যায় নি। আজ সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচার ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটি মিলনায়তনে আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগের উদ্যোগে আয়োজিত ‘ বিএনপি-জামায়াতের অগ্নি সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের রাজনীতি এবং নতুন প্রজন্মের করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে প্রায়ই তাদের বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচীতে কান্না করতে দেখা যায়। তাঁর এটা কান্না না মায়াকান্না তা নিয়ে ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়। কেননা যিনি মানুষের কষ্ট দেখে ব্যথিত হন তিনি সকল মানুষের কষ্ট দেখেই ব্যথিত হন।’

এ বিষয়ে ড. হাছান আরো বলেন, ‘যারা গ্রেনেড হামলা ও পেট্রোলবোমা হামলায় হতাহত হয়েছিলেন তাদের জন্য তো আপনাদের কখনও কাঁদতে দেখিনি। আর এখন দলীয় সন্ত্রাসীদের জন্য কান্নাকাটি করছেন।’

সংগঠনের সভাপতি এডভোকেট মো. আসাদুজ্জামান দুর্জয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দান করেন আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের উপদেষ্টা সৈয়দা রোকেয়া বেগম।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের সাধারণ সম্পাদক মুন্সি এবাদুল হক, সহ সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন শফি, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. শরীফ আহম্মেদ ও মো. কামরুল হাসান।

এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী রাজনৈতিক দলগুলোর সমন্বয়ে যে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হবে সে সরকারের প্রধান থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, আর জাতীয় সংসদে বিএনপির প্রতিনিধিত্ব না থাকায় তাদের নির্বাচনকালীন সরকারে থাকার কোন সুযোগ নেই।

এ বিষয়ে কামরুল আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে গঠিত নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হবে।
বিএনপির সাথে কোন ধরনের সংলাপের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে এডভোকেট কামরুল বরেন, ‘ বিএনপি একটি সন্ত্রাসী দল। কোন সন্ত্রাসী দলের সাথে কোন গণতান্ত্রিক দলের সংলাপ হতে পারে না। তাই আওয়ামী লীগের সাথেও বিএনপির কোন সংলাপ হবে না।’

বিএনপি আন্দোলন করার মতো কোন ক্ষমতা নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থেই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করতে হয়। আর সন্ত্রাসীদের মুক্তি দিয়ে নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড প্রতিষ্ঠা করা যায় না।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর