স্মার্ট বাংলাদেশের সাথে মিলিয়ে স্মার্ট সেনাবাহিনী হবে: সেনাপ্রধান

সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ফোর্সেস গোল্ড ২০৩০ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় সেনাবাহিনীকে আধুনিকায়ন করা হচ্ছে। আর স্মার্ট বাংলাদেশের সাথে তাল মিলিয়ে স্মার্ট সেনাবাহিনী করা হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নের্তৃত্বে। সেই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীও এগিয়ে যাচ্ছে। অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী এখন ফোকাস ও বেশি প্রশিক্ষণ করছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইল জেলার দেলদুয়ার থানা এলাকায় সেনাবাহিনীর শীতকালীন বহিরঙ্গণ অনুশীলনের চূড়ান্ত মহড়া অবলোকন শেষে তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

সেনাপ্রধান বলেন, ফোর্সেস গোল্ড ২০৩০ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় সেনাবাহিনীকে আধুনিকায়ন করা হচ্ছে। বাস্তব সম্মত ও যুগোপযুগী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীকে একটি বিশ্ব মানের বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। সেনাবাহিনীকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে কঠিন প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। কঠিন প্রশিক্ষণই যুদ্ধকে সহজ করে। এসময় তিনি দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ ও বীরমুক্তিযোদ্ধাদের অবদান স্মরণ করেন।

চূড়ান্ত মহড়ার মধ্য দিয়ে শেষ হলো বাংলাদেশ সেনবাহিনীর তিন সপ্তাহব্যাপী পরিচালিত শীতকালীন প্রশিক্ষণ ২০২২-২০২৩ অনুশীলন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৯ পদাতিক ডিভিশন সফলভাবে এই অনুশীলন পরিচালনা করে। এই অনুশীলনে সাঁজোয়া বহর, এপিসি এর পাশাপাশি সেনাবাহিনীর ছত্রীসেনা অংশগ্রহণ করে। সেনাবাহিনীর আর্মি কমান্ডো সন্নিবেশ, ইঞ্জিনিয়ার্স কর্তৃক প্রতিবন্ধকতা অপসারণ এবং পদাতিক ও অন্যান্য কোরের সমন্বয়ে শত্রু অবস্থানের ওপর আক্রমণ পরিচালনা করা হয়।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সেনাবাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সারওয়ার হাসান, কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল লেফটেন্যান্ট জেনারেল মোঃ সাইফুল আলম, জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) আর্মি ট্রেনিং এন্ড ডকট্রিন কমান্ড লেফটেন্যান্ট জেনারেল আহম্মদ তাবরেজ শামস চৌধুরীসহ সেনাসদরের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারবৃন্দ, অন্যান্য জ্যেষ্ঠ সামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ এবং গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর