৪২.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস দাবদাহে বিপর্যস্ত জনজীবন

চুয়াডাঙ্গায় টানা ২ সপ্তাহ ধরে তাপপ্রবাহে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। আজ শনিবার থেকে শুরু হয়েছে অতি দাবদাহ। ঝাঝালো রোদ আর গরমে রোজাদারদের অবস্থাও ওষ্ঠাগত। আবহাওয়া অফিস বলছে সহজে দেখা মিলছেনা বৃষ্টির। আজ শনিবার বেলা ৩টায় এ জেলায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৪২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এ সময় বাতাসের আদ্রতা ছিল ১৬ শতাংশ। এতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে দুপুরের পর থেকে বাইরে বের হওয়া দায় হয়ে পড়ছে। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না কেউ। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এলাকায় মাইকিং করা হচ্ছে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে যাতে হিট স্ট্রক, পানি শুন্যতা ও ডায়রিয়া আক্রান্ত না হয় সাধারণ মানুষ।

চুয়াডাঙ্গা প্রথম শ্রেণির আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ইনচার্জ জামিনুর রহমান বলেন, প্রতিদিনই দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায় রেকর্ড হচ্ছে। গত টানা ২ সপ্তাহ ধরে জেলায় সর্ব্বোচ্চ তাপমাত্রা বিরাজ করছে। আজ শনিবার সকাল ৯ টায় ছিল ৩০.৫ ডিগ্রী সেলসিয়াস। এরপর দুপুর ১২টায় তাপমাত্রা বেড়ে ৪০.৪ ডিগ্রি হয়ে যায়।

এরপর বেলা ৩টায় ৪২.২ ডিগ্রীতে পৌঁছায়। শুরু হয় অতি দাবদাহ। আকাশ আংশিক মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে তবে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা নেই। ফলে তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে। সকালে সৃর্য ওঠার সাথে সাথে তীব্র রোদ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এ রোদ যেন আগুনের ফুলকি হয়ে ঝরছে। বিশেষ করে দুপুরের পর আগুন ঝরা রোদের তেজে বাইরে বের হওয়া মুশকিল হয়ে পড়ছে। এ অবস্থা বিরাজ করছে সুর্য একেবারে ডুবে যাবার আগ পর্যন্ত।

চলমান তাপপ্রবাহে সবচেয়ে কষ্টে পড়েছে খেটে খাওয়া দিনমজুর, রিকশা-ভ্যান চালক ও কৃষকেরা। তীব্র রোদে মাঠে টিকতে পারছেনা কৃষক ও দিনমজুর। রাস্তায় ভাড়া মারতে পারছেনা রিক্সা-ভ্যান চালকরা। এদিকে তীব্র খরায় ঝরে যাচ্ছে আম-লিচুর গুটি। বোরো ধান, সবজি ক্ষেতে প্রতিদিন সেচ দিতে হচ্ছে। ফলে বিপাকে পড়েছে কৃষকরা। বাড়তি দামে প্রতিদিন ডিজেল কিনতে গিয়ে নাভিশ্বাস ছুটে যাচ্ছে তাদের।

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া পর্যবেক্ষনাগারের রেকর্ড অনুযায়ী, শুক্রবার এ জেলায় ৪১.৭ ডিগ্রি, বৃহস্পতিবার ছিল ৪১ ডিগ্রি, বুধবার ছিল ৩৯.৭ ডিগ্রি, মঙ্গলবার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৩৯.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সোমবার জেলায় সর্বোচ্চ ৩৯.২ ডিগ্রি, রবিবার তাপমাত্রা ৩৯ ডিগ্রি, শনিবার ছিল ৩৮.৫ ডিগ্রি, শুক্রবার ৩৮ ডিগ্রি, বৃহস্পতিবার ৩৭.৫ ডিগ্রি, বুধবার ৩৭ ডিগ্রি, মঙ্গলবার ৩৭ ডিগ্রি, সোমবার ৩৫.৫ ডিগ্রি, রবিবার ৩৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর