আয়নায় নিজের চেহারা দেখুন, কাদেরকে রিজভী

‘নির্বাচন কমিশন স্বাধীন, তারা শুধু রুটিন কাজ করবে, তাদের অধীনেই সুষ্ঠু নির্বাচন হবে’-আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

রিজভী বলেন, আয়নায় নিজের চেহারা দেখুন। ২০১৪ সালে একতরফা ও ২০১৮ সালে কিভাবে দিনের ভোট রাতে করা হয়েছে বাংলাদেশসহ বিশ্ববাসী তা দেখেছে। আপনাদের অধীনে আজ পর্যন্ত কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে শুরু করে সব নির্বাচনে ভোট ডাকাতি হয়েছে। জনগণ তাদের নিজের ভোট দিতে পারেনি।  জনগণ আপনাদের বিশ্বাস করে না। আপনারা জনগণের সঙ্গে বারবার যে প্রতারণা করেছেন তারা সেই জবাব এবার দেবে।

আজ রোববার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া দেশে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। শেখ হাসিনার (প্রধানমন্ত্রী) অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না। ভোটের অধিকার আদায়ে সারাদেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ। এবার আর সরকার রক্ষা পাবে না। অচিরেই সরকারের পতন হবে।

দেশব্যাপী আবারো গ্রেফতার নির্যাতন চলছে উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, কোনো কারণ ছাড়াই ৭ ডিসেম্বর পুলিশ নয়াপল্টনে হামলা করেছিল। ৪৭০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছিল। সেই হামলা ছিল পরিকল্পিত। কারাগারে গিয়ে দেখি গোটা কারাগার বিএনপি নেতাকর্মী দিয়ে পরিপূর্ণ। কারও পায়ে স্যান্ডেল, কেউ কেউ লুঙ্গি পরা। এরা অতিসাধারণ বিএনপি নেতাকর্মী। তারা বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে অংশ নিতে ঢাকায় এসেছিল।

তিনি বলেন, গোটা দেশটাই আজ কারাগার। আমরা ছোট কারাগার থেকে বৃহৎ কারাগারে প্রবেশ করেছি মাত্র। আটক করে নিপীড়ন করে জনগণকে আর দাবিয়ে রাখা যাবে না। গ্রেফতার করে নির্যাতন করে গণজোয়ার ঠেকাতে পারবে না সরকার। এবার জনগণের বিজয় হবেই।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালযে নবীনদের স্বাগত জানাতে গিয়ে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, বর্তমানে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী সংগঠনে পরিণত হয়েছে।

বিচারপতি শামসুদ্দিন মানিকের ওপর হামলার ঘটনায় যুবদলের নেতাদের জামিন দেওয়া হচ্ছে না অভিযোগ করে রিজভী বলেন, বিএনপি বা যুবদলের কোনো নেতাকর্মী তার ওপর হামলা করেনি। এ ঘটনা সাজানো ও মিথ্যা। বিএনপির তরুণ নেতৃত্বকে ধ্বংস করতে সাজানো মামলা দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশসহ বিশ্বের মানুষ জানে বিচারপতি মানিক একজন নিপীড়ক বিচারপতি ছিলেন। এখনো তিনি তদবির করছেন মিথ্যা সাজানো মামলায় যাতে কেউ জামিন না পান। ন্যায়বিচার ও আটক নেতাকর্মীদের জামিন দেওয়ার জন্য বিচারপতিদের প্রতি আহবান জানান রিজভী।

একই সঙ্গে সাইফুল আলম নিরব, গোলাম মওলা শাহীন, এসএম জাহাঙ্গীর, রফিক হাওলাদারসহ আটক সব নেতাকর্মীর মুক্তি দাবি করেন তিনি।

সম্প্রতি কারামুক্ত রুহুল কবির রিজভীর সঙ্গে আজ মতবিনিময় করেন প্রকৌশলীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (অ্যাব) কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির নেতারা। এ সময় সংগঠনটির নেতারা ফুল দিয়ে তাকে শুভেচ্ছা জানান। মতবিনিময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- অ্যাবের কেন্দ্রীয় সভাপতি প্রকৌশলী রিয়াজুল ইসলাম রিজু, মহাসচিব প্রকৌশলী আলমগীর হাছিন আহমেদ, কেন্দ্রীয় নেতা আশরাফ উদ্দিন বকুল, প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান চুন্নু, প্রকৌশলী মো. মোস্তফা-ই-জামান সেলিম, প্রকৌশলী মো. মাহবুব আলম, প্রকৌশলী শামীম রাব্বী সঞ্চয়, প্রকৌশলী তানবিরুল ইসলাম তমাল, প্রকৌশলী হেলাল উদ্দিন তালুকদার, প্রকৌশলী মোতাহার হোসেন, প্রকৌশলী আহসান রাসেল, প্রকৌশলী কামরুল হাসান খান প্রমুখ।

এ সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে ছিলেন- আব্দুস সালাম আজাদ, মীর শরাফত আলী সপু, অনিন্দ্য ইসলাম অমিত, আসাদুল করিম শাহীন, শামীমুর রহমান শামীম, আমিনুল ইসলাম, আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী, তরিকুল আলম তেনজিং প্রমুখ।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর