কোনও বিশেষ বাহিনী নয়, অপরাধীর পরিচয় অপরাধীই

বাঙালী কণ্ঠ নিউজঃ  কোনও বিশেষ বাহিনী নয়, অপরাধীর পরিচয় অপরাধীই বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

হাইকোর্টের দেওয়া এই রায়ের সঙ্গে নারায়ণগঞ্জবাসী একমত হবেন বলে আশাবাদ জানান নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র।

ফাঁসি কার্যকরের আগ মুহূর্তে মোবাইল ফোনে মায়ের সঙ্গে মুফতি হান্নানের শেষ কথোপকথন

নারায়ণঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলায় হাইকোর্টের রায় ঘোষণার পর তিনি এ প্রতিক্রিয়া জানান। এসময় তিনি বলেন, ‘আইনের চোখে সবাই যে সমান, তা আরেকবার প্রমাণিত হলো এই রায়ের মাধ্যমে। কোনও বিশেষ বাহিনী নয়, অপরাধীর পরিচয় অপরাধীই। আইনের ঊর্ধ্বে কেউই না।’

মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) হাইকোর্টে ঘোষণা করা এই রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আইভী বলেন, ‘এই রায়ে প্রমাণিত হয়েছে যে সরকারের সদিচ্ছা আছে। বিচার বিভাগ যে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারে এবং স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারে সেটাও প্রমাণিত হয়েছে।’

 

এর আগে, আলোচিত এই মামলায় হাইকোর্টের রায়ে সাবেক কাউন্সিলর নূর হোসেন ও র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তা তারেক সাঈদ, আরিফ হোসেন ও মাসুদ রানাসহ ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রাখা হয়। এছাড়া, রায়ে ১১ জনকে যাবজ্জীবন ও ৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বিচারিক আদালতের রায়ে ৩৫ জন আসামির মধ্যে হাইকোর্টে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া ১৫ জনসহ ২৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড ও বাকি ৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।

এর আগে, মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের শুনানি শেষ হয় ২৬ জুলাই। ওই দিন রায় ঘোষণার জন্য ১৩ আগস্ট দিন ধার্য করেন আদালত। তবে সেদিন রায় ঘোষণা না করে রায় ঘোষণার জন্য ২২ আগস্টকে নতুন দিন ঘোষণা করা হয়।

বিচারিক আদালতের রায়ে এ মামলায় দণ্ডিত ৩৫ আসামির মধ্য ২৫ জনই র‌্যাবের সদস্য ছিলেন। তাদের মধ্যে ১৫ জন সেনাবাহিনী, দু’জন নৌবাহিনী ও আটজন পুলিশ বাহিনীর সদস্য হিসেবে ছিলেন। ফৌজদারি অপরাধে একসঙ্গে এত র‌্যাব সদস্যদের সাজা এর আগে আর হয়নি। সাত খুনের মামলা হওয়ার পর তাদের সবাইকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর