,



পৌষ তোদের ডাক দিয়েছে

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ বাতাসে কমে গেছে আর্দ্রতা। প্রকৃতিতে এখন হিম হিম গন্ধ। শিশির ভেজা ঘাসের ডগায় মুক্তোর দানা। সন্ধ্যা-সকাল কুয়াশার চাদর মুড়ে দিচ্ছে চারপাশ। ভোরের কাঁচা রোদ, মৃদু হিমস্পর্শ প্রাণে শিহরণ তুলে বিদায় নিয়েছে অগ্রহায়ণ। হেমন্তের পর প্রকৃতিতে শীতল পরশ নিয়ে এলো পৌষ।

রবীন্দ্রনাথ পৌষের ফসল কাটার গানে বলেছেন: ‘পৌষ তোদের ডাক দিয়েছে আয় রে চলে আয়…।’ এই শীত ঋতুতেই বাংলাদেশে নবান্নের উৎসব শেষে চলে নানা উত্সবাদির আয়োজন। শীতকাল অন্য ঋতুগুলোর চেয়ে একেবারেই আলাদা। মাঠে মাঠে সোনালি ধান গোলায় ভরার উৎসবে মেতে থাকা মানুষের শরীরে লাগে শীতের কাঁপন। নতুন ধানের পিঠা-পায়েস নিয়ে সকালের মিঠে রোদ্দুরে পিঠ ঠেকিয়ে রসনা তৃপ্তি শীতের সে এক অন্যরকম অনুভূতি। বর্তমান তথ্য প্রযুক্তি ও টিভি চ্যানেল সংস্কৃতির যুগে আগের মতো না হলেও আমাদের বিনোদনের একটি অন্যতম অনুষঙ্গ হিসাবে যাত্রা ও পালা গানের আবেদন একেবারেই ফুরিয়ে যায়নি। তা আমরা টের পাই শীত এলেই।

শীত ঋতুতে আমাদের প্রকৃতি পরিবেশ প্রতিবেশে কিছুটা রুক্ষ্মতার ছোঁয়া লাগে। আবহাওয়ায় জলীয়বাষ্পের পরিমাণ কমে গিয়ে এ রুক্ষ্মতার সৃষ্টি হয়। বৃক্ষরাজি পাতা ঝরিয়ে কেমন ন্যাড়া ন্যাড়া হয়ে ওঠে। শীতের অতিথি পাখিরাও চলে আসে। পাখিদের কলকাকলিতে মুখর হয়ে ওঠে নদী-নালা, খাল-বিল, হাওর-বাঁওড়। শীতকাল উপভোগ্য হলেও এই মৌসুমটাতে নানা রোগব্যাধির প্রাদুর্ভাব দেখা দেয় । আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে ঠান্ডাজনিত নানা স্বাস্থ্যগত সমস্যা দেখা দেয়। এ সময়টাতে শরীরের প্রতি বাড়তি যত্ন নিতে নয়।

তবে সামপ্রতিক বছরগুলোতে পঞ্জিকার অনুশাসন মানছে না আর প্রকৃতি। শীত-গ্রীষ্মকে আলাদা করে চেনা কঠিন হয়ে উঠছে। শীত তার দশ প্রহরণ ছড়াতে না ছড়াতেই বসন্ত এসে প্রকৃতিকে অধিকার করে নিচ্ছে। গ্রিনহাউজ এফেক্টের কারণে প্রকৃতি আর স্বাভাবিক থাকছে না বলে পরিবেশ বিজ্ঞানীদের অভিমত।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর