ঢাকা , বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভিসা নীতি কীভাবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে তারাই জানে

মার্কিন ভিসা নীতি কীভাবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে তারাই জানে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

শনিবার (২৭ মে) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সরকার কোনো ভয় পাচ্ছে না জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কাকে ভিসা দেবে আর কাকে দেবে না, এটা যুক্তরাষ্ট্রের নিজস্ব ব্যাপার। এভাবে, ভিসা নীতি নিয়ে ঢাকঢোল পেটানোর কোনো দরকার নেই।’

যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তে সাধারণ মানুষের কোনো ক্ষতি হবে না উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যারা জ্বালাও পোড়াও করে, তাদের জন্যই ভিসা নীতি বেশি প্রযোজ্য।

এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে রাষ্ট্রদূতদের নিরাপত্তায় কোনো ঘাটতি নেই, কখনো ছিল না। রাষ্ট্রদূতদের এসকর্ট সুবিধা ফেরত দেওয়া হচ্ছে না। গুজব ভিত্তিহীন।

সাম্প্রতিককালে রাষ্ট্রদূতদের উপর কোনো হামলা হয়নি জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তবে সাবেক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার ঘটনা বদিউল আলম মজুমদারের পারিবারিক সমস্যার কারণে হয়েছিল। সেটি শালা-দুলাভাইয়ের মধ্যে সমস্যা, যেটি পরে রাষ্ট্রীয় সমস্যা হয়ে গেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন ভিসা নীতির কারণে টাকা পাচার কমবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মন্তব্য করেন।

সম্পতি বাংলাদেশের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ভিসা নীতি ঘোষণা করেছে। তাতে বলা হয়েছে বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচনে যারা বাধা দেবে তাদের ও তাদের আত্মীয়দের ভিসা দেবে না দেশটি।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

Bangal Kantha

ভিসা নীতি কীভাবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে তারাই জানে

আপডেট টাইম : ০৪:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ মে ২০২৩

মার্কিন ভিসা নীতি কীভাবে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবে তারাই জানে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

শনিবার (২৭ মে) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সরকার কোনো ভয় পাচ্ছে না জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কাকে ভিসা দেবে আর কাকে দেবে না, এটা যুক্তরাষ্ট্রের নিজস্ব ব্যাপার। এভাবে, ভিসা নীতি নিয়ে ঢাকঢোল পেটানোর কোনো দরকার নেই।’

যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তে সাধারণ মানুষের কোনো ক্ষতি হবে না উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যারা জ্বালাও পোড়াও করে, তাদের জন্যই ভিসা নীতি বেশি প্রযোজ্য।

এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে রাষ্ট্রদূতদের নিরাপত্তায় কোনো ঘাটতি নেই, কখনো ছিল না। রাষ্ট্রদূতদের এসকর্ট সুবিধা ফেরত দেওয়া হচ্ছে না। গুজব ভিত্তিহীন।

সাম্প্রতিককালে রাষ্ট্রদূতদের উপর কোনো হামলা হয়নি জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তবে সাবেক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটের গাড়িতে হামলার ঘটনা বদিউল আলম মজুমদারের পারিবারিক সমস্যার কারণে হয়েছিল। সেটি শালা-দুলাভাইয়ের মধ্যে সমস্যা, যেটি পরে রাষ্ট্রীয় সমস্যা হয়ে গেছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন ভিসা নীতির কারণে টাকা পাচার কমবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মন্তব্য করেন।

সম্পতি বাংলাদেশের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ভিসা নীতি ঘোষণা করেছে। তাতে বলা হয়েছে বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচনে যারা বাধা দেবে তাদের ও তাদের আত্মীয়দের ভিসা দেবে না দেশটি।